‘সুন্দর দৃশ্য’, আমেরিকার ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মস্করা চিনের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছে আমেরিকার ক্যাপিটল বিল্ডিং। ট্রাম্প সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে ইতিমধ্যেই চারজনের মৃত্যু হয়েছে। লণ্ডভণ্ড ক্যাপিটল বিল্ডিং। মার্কিন কংগ্রেসের সদস্যরা সুড়ঙ্গে গিয়ে লুকিয়েছেন। এই ঘটনা নিয়ে অবশ্য আমেরিকাকে মস্করা করতে ছাড়েনি চিন। ২০১৯ সালে হংকংয়ে সরকার বিরোধী বিক্ষোভের সঙ্গে এই বিক্ষোভের তুলনা করেছে তারা।

এদিন সকালে বিক্ষোভ শুরু হওয়ার পরে গ্লোবাল টাইমস হংকং বিক্ষোভ ও ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে বিক্ষোভের ছবি পাশাপাশি রেখে দুটি ঘটনার মধ্যে মিল দেখানোর চেষ্টা করেছে। ২০১৯ সালে হংকংয়ে বিক্ষোভকারীরা শহরের লেজিসলেটিভ কাউন্সিল কমপ্লেক্সের দখল নিয়েছিল। আর এদিন ট্রাম্পের সমর্থকরা ক্যাপিটল বিল্ডিংয়ে ঢুকে নির্বাচনে হারের প্রতিবাদ করতে থাকে। তাদের সেলফি তুলতে, নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়াতে দেখা যায়।

এর মধ্যেই এই ঘটনাকে নিয়ে মস্করা শুরু করেছে চিন। সেদেশের এক সংবাদমাধ্যমে বলা হয়েছে, মার্কিন কংগ্রেসের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি হংকংয়ের বিক্ষোভকে ‘একটি সুন্দর দৃশ্য’ হিসেবে উল্লেখ করেছিলেন। তাই ক্যাপিটল হিলের এই ঘটনা নিয়ে তিনি একই কথা বলতে চান কিনা সেটা জানার অপেক্ষায় রয়েছে গোটা দুনিয়া।

চিনের কমিউনিস্ট ইয়ুথ লিগও এই ঘটনাকে ‘সুন্দর দৃশ্য’ হিসেবে উল্লেখ করেছে। তাদের নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম ওয়েইবো ভরে গিয়েছে এই ধরনের মন্তব্যে। হ্যাশট্যাগ ট্রাম্প সাপোর্টার্স স্টর্ম ইউএস ক্যাপিটল ভাইরাল হয়ে গিয়েছে। সেখানে নানারকম মজার কমেন্ট শোনা যাচ্ছে। একজন মন্তব্য করেছেন, এই মুহূর্তে সব ইউরোপীয় দেশের নেতারা দ্বিচারিতা দেখাচ্ছে। এই ঘটনার নিন্দে করছে তারা। আর একজন লিখেছেন, আমি জানতে চাই এই মুহূর্তে হংকং বা তাইওয়ানের মিডিয়া কী লিখবে। একজন আবার লিখেছেন, গত বছর হংকং লেজিসলেটিভ কাউন্সিলে যা ঘটেছিল সেই ঘটনারই পুনরাবৃত্তি হল ওয়াশিংটনে।

আমেরিকায় ক্যাপিটল হিলে যে ঘটনা ঘটেছে তার নিন্দেয় সরব হয়েছে বেশিরভাগ দেশ। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন থেকে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই সংঘর্ষের নিন্দে করেছেন। পরিস্থিতি এখনও উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে। ঘটনাকে আমেরিকার ইতিহাসে অন্যতম কালো দিন হিসেবে উল্লেখ করেছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। কিন্তু এই ঘটনা নিয়ে মস্করা শুরু করেছে চিন। ভরে উঠেছে তাদের সোশ্যাল মিডিয়া।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More