পাকিস্তানে মাটির নীচে ১৩০০ বছরের পুরনো বিষ্ণু মন্দির, পাহাড় কেটে উদ্ধার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পাকিস্তানে মাটির নীচে পাওয়া গেল এক পুরনো হিন্দু মন্দির। উত্তর-পশ্চিম পাকিস্তানের সোয়াট প্রদেশে পাহাড়ের মধ্যে উদ্ধার হয়েছে এই মন্দির। পাকিস্তানি ও ইতালীয় পুরাতত্ত্ববিদরা মাটি খুঁড়ে এই মন্দির উদ্ধার করেছেন। বিশেষজ্ঞদের দাবি, এটি বিষ্ণু মন্দির। অন্তত ১৩০০ বছরের পুরনো এই মন্দির, এমনটাই দাবি করেছেন তাঁরা।

জানা গিয়েছে, বারিকোট ঘুন্ডাই এলাকায় একটি খনন চলাকালীনই এই মন্দির পাওয়া যায়। এই খননের কথা ঘোষণা করতে গিয়ে খাইবার পাখতুনখোয়া পুরাতত্ত্ব বিভাগের প্রধান ফজল খালিক জানান, যে মন্দিরটি পাওয়া গিয়েছে সেটি একটি বিষ্ণু মন্দির। হিন্দু শাহি আমলে প্রায় ১৩০০ বছর আগে হিন্দুরা এই মন্দিরটি নির্মাণ করেছিলেন বলে মনে হচ্ছে।

ওই এলাকায় যে সব বংশ শাসন চালিয়েছে তাদের মধ্যে অন্যতম হল এই হিন্দু শাহি। এদের কাবুল শাহিও বলা হয়। মূলত কাবুল উপত্যকা (বর্তমানে পূর্ব আফগানিস্তান), গান্ধারা (বর্তমানে পাকিস্তান-আফগানিস্তান) ও বর্তমানে উত্তর-পশ্চিম ভারতে এদের সাম্রাজ্য ছিল। সেই সময়েই এই মন্দির তৈরি হয়েছিল বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

খননের সময় পুরাতত্ত্ববিদরা নাকি মন্দিরের কাছে ক্যান্টনমেন্ট ও ওয়াচ টাওয়ারেরও অস্তিত্ব পেয়েছেন বলেই জানিয়েছেন। শুধু তাই নয় মন্দিরের কাছেই পাওয়া গিয়েছে জলাধার। যুদ্ধে যাওয়ার আগে ওই মন্দিরে পুজো দিয়ে জলাধারে স্নান করে যাওয়া হত বলেই মনে করছেন তাঁরা। ক্যান্টনমেন্টে থাকত সৈন্যরা। আর ওয়াচ টাওয়ার থেকে নজর রাখা হত শত্রুপক্ষের গতিবিধির উপর, এমনটাই ধারণা তাঁদের।

ফজল খালিক জানিয়েছেন, সোয়াট প্রদেশে হাজার বছরের পুরনো বহু পুরাতাত্ত্বিক নিদর্শন লুকিয়ে রয়েছে। তবে সেখানে হিন্দু শাহি পিরিয়ডের কোনও স্থাপত্যের নিদর্শন এই প্রথম পাওয়া গেল। ইতালীয় পুরাতাত্ত্বিক মিশনের প্রধান ডক্টর লুকা জানিয়েছেন, সোয়াট প্রদেশে গান্ধারা সভ্যতার এই প্রথম কোনও মন্দির পাওয়া গেল। এই প্রদেশে প্রচুর বুদ্ধ মন্দিরও রয়েছে বলেই দাবি তাঁদের। পুরাতাত্ত্বিকদের কাছে এই আবিষ্কারের ঐতিহাসিক মূল্য অপরিসীম বলেই জানিয়েছেন তাঁরা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More