রবিবার, ফেব্রুয়ারি ১৭

ফলের টুকরো নয়, ভাল্লুকের খাবার নাকি আইফোন!

দ্য ওয়াল ব্যুরো: চিড়িয়াখানায় গিয়ে শখ করে ভাল্লুকদের খাওয়াতে গিয়েছিলেন পর্যটক। ছুড়ে ছুড়ে দিচ্ছিলেনও আপেলের টুকরো আর গাজর। কিন্তু খানিকটা অন্যমনস্ক ছিলেন তিনি। আর তাতেই ঘটল মারাত্মক ভুল। অসাবধানতায় নিজের পকেটের দামি আইফোনটাই ছুড়ে দিলেন ভাল্লুকদের দিকে।

পূর্ব চিনের জিয়াংসু প্রদেশের ইয়ানচেং ওয়াইল্ডলাইফ পার্কেই ঘটেছে এমন আজব কাণ্ড। ‘ব্রাউন বিয়ার’-দের খাঁচার বাইরের স্কাইওয়াকে দাঁড়িয়ে সাধ করে ভাল্লুকদের খাওয়াতে বসেছিলেন এক পর্যটক। তবে আপেল আর গাজরের বদলে অসাবধানতায় একবার খাঁচায় গিয়ে পড়ে আইফোন। প্রথমে খানিক ভ্যাবাচ্যাকাই খেয়ে গিয়েছিল ভাল্লুকের দল। তবে খানিকক্ষণ এদিক ওদিক দেখেই সটান আইফোনটা মুখে তুলে হাঁটা দিল একটি ভাল্লুক। ভাবখানা এমন যে, এমন স্মার্টফোনের সঙ্গে পরিচয় আছে অনেকদিন আগে থেকেই। আচমকা মোলাকাতে ঠিক বুঝে উঠতে পারেনি যে এটা আদপে বিশ্বের অন্যতম দামি স্মার্টফোন। চিনের বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্মে ছড়িয়ে পড়েছে গোটা ঘটনার ভিডিও। ওই ভিডিওতে দেখা গিয়েছে মুখে নিয়ে হাঁটা লাগাবার আগে বেশ কিছুক্ষণ মন দিয়ে ফোনটা খুঁটিয়ে দেখেছে একটি ভাল্লুক।

ভাল্লুকের খাঁচায় আইফোন বিসর্জন দিয়ে পর্যটক অবশ্য ততক্ষণে হাত কামরাতে বসেছিলেন। ভাগ্যকে দুষে কপালও চাপড়েছিলেন বোধহয়। শেষ পর্যন্ত ওই চিড়িয়াখানার এক কর্মী অবশ্য আইফোনটি উদ্ধার করে। তবে সেটা একেবারেই ভাঙা অবস্থায়। চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ অবশ্য জানিয়েছেন, বারবার পর্যটকদের বারণ করা সত্ত্বেও তাঁরা পশু-পাখিদের খাওয়াতে যান। আর তার ফলেই এই বিপত্তি ঘটেছে।

তবে নেটিজেনদের মন জয় করে নিয়েছে ওই ভাল্লুক। ইতিমধ্যেই ১১ হাজার মানুষ দেখে ফেলেছেন ভাল্লুকের কীর্তিকলাপ। তার ভাবভঙ্গি দেখে হেসে গড়িয়েও পড়েছেন অনেকেই। মজা করে নেটিজেনদের একাংশ বলছে, এতদিনে সবচেয়ে দামি খাবারটা খেয়েছে এই ভাল্লুক।

দেখুন সেই ভিডিও।

Embarrassed! Man accidentally throws iPhone to bears at a zoo

A tourist accidentally threw his iPhone, instead of apples and carrots, to bears at Yancheng Wildlife Park, east China's Jiangsu Province. Fortunately, the zoo staff helped him recover his phone. Netizens called it the most expensive way to feed.

CGTN এতে পোস্ট করেছেন সোমবার, 11 ফেব্রুয়ারি, 2019

Shares

Comments are closed.