আরিয়ানের জামিন কেন খারিজ হল? বিস্ফোরক হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট উঠল আদালতে

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রোজ জেল থেকে আদালতে যাচ্ছেন। তাঁর আইনজীবী জামিনের আবেদন করছেন। আর প্রতিদিন তাঁর জামিন খারিজ হয়ে যাচ্ছে। মাদক (Drug) কাণ্ডে বুধবারও পঞ্চমবারের জন্য শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খানের জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে গয়েছে মুম্বইয়ের আদালতে। তার কয়েক ঘণ্টা পরে জানা গেল ঠিক কী কারণে বারবার ২৩ বছরের আরিয়ানের জামিনের আবেদন খারিজ করে দিচ্ছে আদালত।

এদিন আরিয়ানের একাধিক হোয়াটসঅ্যাপ (Whatsapp) চ্যাট (Chat) আদালতে পেশ করে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। সেখানে কী রয়েছে। এনসিবি আদালতে বলেছে, মুম্বই-সহ লাগোয়া এলাকার ড্রাগ ব্যবসায়ী, বিক্রেতাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখতেন আরিয়ান। তাদের একটা হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপও ছিল।

এনসিবি আদালতে বলেছে, আরিয়ানের চ্যাটে যা মিলেছে তা ভয়াবহ। ড্রাগ মাফিয়াদের সঙ্গে নেক্সাস ছিল তাঁর। মুনমুন ধামোচা, আরবাজ মার্চেন্টের সঙ্গে ষড়যন্ত্র করেই মাদক দেওয়া-নেওয়া চলত। যে ড্রাগ ডিলারদের সঙ্গে আরিয়ানের যোগাযোগ ছিল তাদের সঙ্গে নিয়মিত কথাবার্তা হত মুনমুন ও আরবাজেরও।

তদন্তকারীরা আরও জানিয়েছেন, আরিয়ানের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট থেকে এমন অনেক অজানা লোকের সন্ধান মিলেছে যাদের থেকে কাঁচা মাদক উদ্ধার করেছেন তদন্তকারীরা। এনসিবি-র আইনজীবীদের এই সওয়াল শুনে আরিয়ানের জামিন এদিন ফের নাকচ করে দেন বিচারক।

মুম্বই থেকে গোয়াগামী প্রমোদ তরীতে চলছিল পার্টি। সেখান থেকেই বিরাট মাদক চক্রকে জালে তোলে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো। গোয়াগামী ক্রুজের ওই পার্টিতেই ছিলেন আরিয়ান, মডেল মুনমুন ধামোচা-সহ অন্যান্যরা। গত ৩ অক্টোবর এনসিবি গ্রেফতার করে আরিয়ানকে।

প্রথমে কয়েকদিন নিজেদের হেফাজতে রেখে আরিয়ানকে জেরা চালান এনসিবি আধিকারিকরা। তারপর ৮ অক্টোবর থেকে মুম্বইয়ের আর্থার জেলেই রয়েছেন শাহরুখ খানের ছেলে। এদিনও এনসিবি অফিসাররা আরিয়ানের জামিনের আবেদনের বিরোধিতা করেন। তাঁরা বলেন, ২৩ বছরের তরুণের থেকে এখনও অনেক কিছু জানার বাকি রয়েছে। এবং প্রতিদিন নতুন নতুন জিনিস জানা যাচ্ছে।

আরিয়ানকে জেরার ভিত্তিতেই গত শনিবার মুম্বইয়ের বান্দ্রা ও জুহুর একাধিক জায়গায় তল্লাশি চালায় এনসিবি। আরও বেশ কিছু জায়গায় কেন্দ্রীয় এজেন্সির গোয়েন্দাদের তল্লাশির সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। এখন একটাই প্রশ্ন, দিওয়ালির আগে কি ছেলে ফিরবেন মন্নতে? জামিন পেতে হলে এবার শাহরুখ পুত্রকে হাইকোর্টে আবেদন করতে হবে। কারণ নিম্ন আদালতে এর মধ্যেই পাঁচ বার জামিনের আবেদন খারিজ হয়ে গেল।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.