দু’দিনের ব্যাঙ্ক ধর্মঘট আজ থেকে

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আজ থেকে টানা ৪৮ ঘণ্টা ধর্মঘট দেশের সব রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কে। টাকা থাকবে না এটিএমেও। পশ্চিমবঙ্গে প্রভাবিত হতে পারে বেসরকারি ব্যাঙ্কগুলোও।

মাইনে বাড়ানোর দাবি নিয়ে এই ধর্মঘটের ডাক দিয়েছেন ব্যাঙ্ক আধিকারিক ও কর্মচারীদের ৯ টা ইউনিয়নের জোট ইউনাইটেড ফোরাম অব ব্যাঙ্ক এমপ্লয়িজ। এই ধর্মঘটে অংশ নেবেন দেশের প্রায় এক লাখ ব্যাঙ্ক অফিসার ও কর্মচারী।

২০১৭ সালের ১ নভেম্বর থেকে বাড়ার কথা ব্যাঙ্কের কর্মচারী ও অফিসারদের মাইনে। এই নিয়ে ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক অ্যাসোসিয়েশন, ব্যাঙ্ক ইউনিয়নগুলো এবং চিফ লেবার কমিশনারের একটা ত্রিপাক্ষিক বৈঠক হয়েছে। বৈঠকের পর ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক অ্যাসোসিয়েশন সিদ্ধান্ত নেয়, দেশের সমস্ত রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলোর লোকসানের কথা মাথায় রেখে সামান্য ২ শতাংশ মাইনে বাড়ানো হবে। এই মাইনের বাড়ানো হবে স্কেল থ্রি অবধি অফিসারদের এবং সাধারণ কর্মচারীদের। প্রসঙ্গত, কদিন আগেই জানা যায় দেশের রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলোর লোকসান প্রায় ৫৩ হাজার কোটি টাকা।

এতে রাজি নয় ব্যাঙ্ক ইউনিয়ানগুলো। তাঁদের বক্তব্য, মোট লোকসানের মূল কারণ ফেরত না পাওয়া ঋণ বা অনাদায়ী ঋণের পরিমাণ। দেশের নিয়ম অনুযায়ী, এই অনাদায়ী ঋণের প্রায় ১০০ শতাংশ অবধি সরিয়ে রাখতে হয় ব্যাঙ্কের মোট লাভ থেকে। একে বলে প্রভিশনিং। মোট অনাদায়ী ঋণ বেড়ে যাওয়াতেই বেড়েছে ব্যাঙ্কের লোকসান। কিন্তু সেটা বাদ দিলে সব ব্যাঙ্কই আসলে লাভ করেছিল। দেশের ব্যবসায়ীদের ঋণ ফেরত না দেওয়ার জন্য দায়ী করা যায় না বাঙ্কে চাকরীরতদের।

এছাড়াও নোটবন্দী, প্রধানমন্ত্রীর জন-ধন যোজনা বা অটল পেনশন যোজনার জন্য যথেষ্ট খেটেছেন ব্যাঙ্কে কর্মরত সবাই। ইউনিয়নগুলোর বক্তব্য মাইনে বাড়া উচিত অন্তত ১৫ শতাংশ। এই দাবিতেই ধর্মঘট ডেকেছে তারা।

কিন্তু দু’দিন ব্যাঙ্ক বন্ধ থাকলে, টাকা ভরা হবে না বেশির ভাগ এটিএমেও। বন্ধ থাকবে ব্রাঞ্চও। আজ থেকেই তাই লম্বা লাইন পড়ছে দেশের বিভিন্ন ব্যাঙ্কের ব্রাঞ্চ ও এটিএমে।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.