এনপিআর: বায়োমেট্রিক নয়, নথিও লাগবে না! জনতার উপর আস্থা রয়েছে, জানাল মোদী সরকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি নিয়ে যখন গোটা দেশ জুড়ে বিভ্রান্তি ও অসন্তোষ শুরু হয়েছে তখন আজ মঙ্গলবার ন্যাশনাল পপুলেশন রেজিস্টার তথা জনসংখ্যা পঞ্জি প্রস্তুতির মোদী মন্ত্রিসভা অনুমোদন দিল ঠিকই। কিন্তু একইসঙ্গে নরেন্দ্র মোদী সরকারের তরফে এও পষ্টাপষ্টি জানিয়ে দেওয়া হল, এনপিআর-এর জন্য কোনও বায়োমেট্রিক তথ্য লাগবে না। অর্থাৎ আঙুলের ছাপ, চোখের রেটিনার ছবি প্রয়োজন হবে না। জন্ম পরিচয়, বাড়ির ঠিকানার প্রমাণ পত্র ইত্যাদি কোনও নথিও লাগবে না। মানুষ স্বেচ্ছায় যে তথ্য দেবে তাই গ্রহণ করবে সরকার। কোনও ব্যক্তি চাইলে সরকারের মোবাইল অ্যাপ খুলে তাতে তথ্য জমা দিতে পারেন। এ জন্য সরকার একটি মোবাইল অ্যাপও তৈরি করেছে। তা ছাড়া আগে ফর্ম ছিল তা আরও সরল ও ছোট করা হয়েছে। কেউ চাইলে মোবাইল অ্যাপ ডাউনলোড করে তথ্য জমা দিতে পারেন।

মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর কেন্দ্রীয় তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী প্রকাশ জাভরেকর বলেন, “এ ব্যাপারে দেশের জনতার উপর সরকারের আস্থা রয়েছে।”

এদিন জাভরেকরের কথাতেই বোঝা যায় যে এনআরসি ও নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে দেশজুড়ে যে বিক্ষোভ চলছে তা নিয়ে সরকার উদ্বিগ্ন। তাই এনপিআর নিয়ে নতুন করে যাতে বিভ্রান্তি না ছড়ায় সে জন্য সরকার খুবই সতর্ক। সম্ভবত সেই কারণেই এদিন সাংবাদিক বৈঠকে প্রকাশ জাভরেকর অন্তত দশবার বলেন, এনআরসি আর এনপিআর এক নয়। তাদের মধ্যে দূর দূর থেকে কোনও সম্পর্ক নেই। এনআরসি হল নাগরিক পঞ্জি। আর এনপিআর হল জনসংখ্যার পঞ্জি। এনপিআর-এর কাজ দশ বছর আগে ইউপিএ জমানাতেও হয়েছিল। সেটা ভাল কাজ। সেটাই ফের করছে মোদী সরকার।

তাঁর কথায়, দশ বছর অন্তত জনগণনার কাজ হয়। সেই সূত্রেই এনপিআর-এর কাজ হচ্ছে। সরকার কোনও অতিরিক্ত তথ্য চাইছে না। নাম, ধাম, বাসস্থান ইত্যাদি খুবই সাধারণ তথ্য জানতে চাইছে। জনগণনার জন্য এরকম ভাবে তথ্য সংগ্রহ এর আগে বহুবার হয়েছে। এটা নতুন কিছু নয়।

বাস্তব হল, এনপিআর নিয়ে ইতিমধ্যেই বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার ও কেরলে বাম সরকার পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে তাদের রাজ্যে এনপিআর-এর কাজ হবে না। কারণ, তৃণমূল ও বামেদের ধারণা হল জনসংখ্যা পঞ্জির কাজ হল এনআরসি-র প্রথম ধাপ। সেই কারণেই তারা এনপিআর-এর কাজ রুখে দিয়েছে। মঙ্গলবার এই বিভ্রান্তি দূর করারই চেষ্টা করেছেন প্রকাশ জাভরেকর।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More