নেশার ‘টান’ দূর হোক, ধূমপান বিরোধী সচেতনতার বার্তা বোসপুকুর পুজোয়

1

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মণ্ডপের সামনেই দাঁড়ালে দেখা যাবে শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গকে। ফুসফুস। শ্বাস-প্রশ্বাসের চলন রাখার ক্ষেত্রে যে অঙ্গের গুরুত্ব অপরিসীম, সেই অঙ্গের আদলেই সেজে উঠছে মণ্ডপ। তবে ধূমপানের ফলে যে রোজ ক্ষতি হচ্ছে ফুসফুসের সেটাই উঠে আসছে মণ্ডপের পরতে পরতে।

নেশার টান দূর হোক, মায়ের টান ফিরে আসুক… এই বার্তা নিয়েই সেজে উঠছে বোসপুকুর (Bosepukur) শীতলা মন্দির সার্বজনীনের মণ্ডপ। সমাজের কাছে নেশা থেকে দূরে থাকার বার্তা দিতে চলেছে এই ক্লাব।

ঝাড়গ্রাম ডিয়ার পার্কের খাঁচা ভেঙে পালিয়ে গেল চিতাবাঘ! আতঙ্কে স্থানীয়রা

বোসপুকুর শীতলা মন্দিরের মণ্ডপ সজ্জায় এবার নেশার প্রতি মানুষের ‘টান’কে তুলে ধরা হচ্ছে। সেই ভাবনা বাস্তবায়ন করতে ব্যবহৃত হচ্ছে মানুষের ধূমপানের আদিম প্রথা। হুঁকো-কল্কে। তারের জাল দিয়ে তৈরি ফুসফুসের কাঠামোর ওপর থাকবে হুঁকো-কল্কের আস্তরণ। নেশা কিভাবে ধীরে ধীরে মানুষকে মৃত্যুর পথে টেনে নিয়ে যায় সেই চিত্রই এবার ধরা পড়বে পুজোর মণ্ডপে।

হুঁকো-কল্কে কেন? ধূমপানের প্রাচীন রীতিটাকেই ধরে রেখে মণ্ডপ সাজাচ্ছেন শিল্পী গোবিন্দ গিরি। বার্তা দিচ্ছেন সচেতনতার। ধূমপানের ক্ষতি মানুষের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছেন তিনি। এভাবেই মানুষের মধ্যে ধূমপান বিরোধী মানসিকতা গড়ে তোলার চেষ্টায় গোবিন্দবাবু।

শিল্পীর কথায়, “টান শব্দটা দুই অর্থে ব্যবহার হয়। ইতিবাচক, নেতিবাচক। ইতিবাচক অর্থে কোনও মানুষের বা প্রিয়জনের প্রতি টান বোঝায়। আর আরেক অর্থে নেশার প্রতি টান। প্রাচীনকালে এই টান শুরু হয় হুঁকো-কল্কে দিয়ে। সেই পুরনো হুঁকো এখন প্রায় বিলুপ্তির পথে। কিন্তু নেশার টান আরও নানা ভাবে রয়ে গেছে সমাজে।”

তবে শিল্পের খাতিরে সেই বিলুপ্ত হুঁকোকেই মণ্ডপে টেনে এনেছেন শিল্পী। আর এই ধূমপান ফুসফুসকে যে নষ্ট করে দিচ্ছে সেটাই তুলে ধরতে গিয়ে শিল্পী বলেন, “আমরা এখানে ক্ষতিগ্রস্ত ফুসফুসকে দেখানো হচ্ছে। যাতে মানুষ বোঝে ধূমপান করলে ফুসফুসের ক্ষতি হয়।”

করোনাবিধি ও হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা মেনেই এবারের মণ্ডপ তৈরি করা হচ্ছে বলে জানান ক্লাবের সভাপতি কাজল সরকার। তিনি বলেন, “এবার আমাদের মণ্ডপকে অনেক এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। যাতে দর্শকরা বাইরে থেকেই মণ্ডপ ও প্রতিমা দর্শন করে চলে যেতে পারেন।”

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.