রেল-এলাকায় অপরাধ কমেছে ৫৭ শতাংশ! লকডাউনে যেন শাপে বর হয়েছে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ট্রেনের মধ্যে কিংবা রেল স্টেশন (Rail Station) লাগোয়া এলাকায় চুরি ছিনতাই নতুন নয়। এমনকি ডাকাতিও হয়ে থাকে আকছার। লকডাউন কিন্তু তাতে শাপে বর হয়েছে। ২০২০ সাল থেকে লকডাউনে বন্ধ ট্রেন। মাঝে চালু হলেও এখনও পর্যন্ত রাজ্যের ট্রেন পরিষেবা পুরোপুরি স্বাভাবিক হয়নি। আর তাতেই উঠে এসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। দেখা গেছে লকডাউনের সময় রেলের অধীনস্ত এলাকায় অপরাধের পরিমাণ অর্ধেকেরও বেশি কমে গেছে।

আদানির বন্দরে মাদক উদ্ধারের ঘটনা থেকে দৃষ্টি সরানোর চেষ্টা, বিএসএফ বিতর্ক নিয়ে বলল কংগ্রেস

শুধু ট্রেনে চুরি ছিনতাই নয়, স্টেশন কিংবা স্টেশন লাগোয়া চত্বরে হামেশাই দেখা যায় নানা অপরাধ ঘটছে। মেয়েদের শ্লীলতাহানিও থাকে সেই অপরাধের তালিকায়। রেল অধীনস্ত এলাকা যেন ছোট বড় নানা অপরাধের আখড়া। পুলিশের শত তৎপরতা সত্ত্বেও পরিস্থিতি খুব একটা উন্নতি হয়নি। ২০২০ সালে দেশ জোড়া লকডাউন সেই অপরাধে লাগাম লাগিয়েছে।

রেল সূত্রের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ২০১৯ সালে রেল এলাকায় অপরাধের সংখ্যা ছিল ১৬১৩। ২০২০ সালের মার্চ মাস থেকে কোভিডের বাড়বাড়ন্ত ঠেকাতে লকডাউন শুরু হয়। তারপর দীর্ঘ সময় রেল পরিষেবা বন্ধ ছিল। ২০২০ সালের পরিসংখ্যান বলছে, অপরাধের সংখ্যা নেমে এসেছে ৬৯৫-তে। অর্থাৎ একবছরে ৫৬.৯২ শতাংশ বা প্রায় ৫৭ শতাংশ কমেছে রেল এলাকায় অপরাধ।

শুধু তাই নয়, ২০১৬ সাল থেকে রেল অধীন এলাকায় অপরাধের সংখ্যার দিকে নজর রাখলেও চমকে যেতে হয়। ২০১৬ সালে ২ হাজার ৪৬টি, ১৭-তে ২ হাজার ১৩২টি, ১৮-তে ১ হাজার ৯৪০টি অপরাধের রেকর্ড রয়েছে পুলিশের খাতায়। সেখানে ২০২০ সালে অপরাধ কমে আসার পরিমাণ চোখে পড়ার মতো।

২০২১ সালেও ট্রেন পরিষেবা স্বাভাবিক হয়নি। যদিও ট্রেন একেবারে বন্ধ নেই। স্টাফ স্পেশাল ট্রেন চলছে বেশ কিছু, তাতে আগের মতোই যাতায়াত করছেন মানুষ। তবু ২০২১-এও রেলের পরিসংখ্যান অনুযায়ী অপরাধের সংখ্যা আগের চেয়ে অনেক কম। চলতি বছরের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রেল এলাকায় অপরাধ ঘটেছে ৭৭৩টি।

পরিসংখ্যান বলছে রেলের এলাকায় চুরির ঘটনাই সবচেয়ে বেশি। ২০১৯ সালে তার সংখ্যা ছিল ৬৯৮। ২০-তে তা কমে দাঁড়িয়েছে ৩২২। আর একুশের সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রেলে চুরির ঘটনা ৩৩৯টি। এছাড়া ডাকাতি, ছিনতাই, মাদক পাচার, শ্লীলতাহানি এমনকি ধর্ষণ ও খুনের মতো ঘটনাও ঘটে থাকে রেল অধীন এলাকায়। লকডাউনে তার পরিমাণ কমেছে।

রেল এলাকায় অপরাধের মাত্রা আগের চেয়ে অনেক কমে এসেছে। এই ধারাই বজায় রাখতে চায় রেল পুলিশ। এলাকা ভাগ করে দায়িত্ব নিয়ে সেই ব্যবস্থাই কর হচ্ছে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More