২৪ ঘণ্টা পরেও জ্বলছে বাংলাদেশের কারখানা, জীবন্ত দগ্ধ অন্তত ৫২, মর্গের বাইরে হাহাকার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাংলাদেশের নারায়ণগঞ্জে ৬ তলা জুস ফ্যাক্টরিতে আগুন লাগার পর কেটে গিয়েছে ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময়৷ তার পরেও নিয়ন্ত্রণে আসেনি আগুন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে আগুন লাগে রূপগঞ্জের শেজান জুস ফ্যাক্টরিতে। অন্তত ৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে, জখম ৫০ জনের  ওপর। ছ’ তলা কারখানা ভবনের চার তলা পর্যন্ত আগুন নেভানো সম্ভব হলেও পঞ্চম এবং ষষ্ঠ তলার আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারেনি দমকল৷ কারখানার বহু শ্রমিক এখনও নিখোঁজ৷ তাঁদের দগ্ধ দেহ কারখানার ভিতরেই রয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে৷

যদিও এ দিন কারখানার পাঁচ এবং ছ’তলায় তল্লাশি শেষ করে উদ্ধারকারী দলের তরফে দাবি করা হয়েছে, আর কোনও মৃতদেহ নেই কারখানায়৷ যে দেহগুলি উদ্ধার হয়েছে, তাদের মধ্যে অধিকাংশই চেনা যাচ্ছে না, ডিএনএ পরীক্ষা করতে হবে।

উদ্ধার হওয়া দেহগুলি ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে৷ দিনভর নিখোঁজ কর্মী এবং শ্রমিকদের পরিবারের সদস্যদের হাহাকারের রোল উঠেছে দগ্ধ কারখানা এবং হাসপাতালের বাইরে৷

রাজধানী ঢাকার বাইরে অবস্থিত ফলের রস তৈরির  কারখানায় গ্রাউন্ড ফ্লোরে প্রথম  আগুন লাগে, তারপর তা দ্রুত গ্রাস করে গোটা বাড়়িটাকে। দাউদাউ করে জ্বলতে থাকে বাড়িটা। সেখানে রাসায়নিক, প্লাস্টিকের বোতল ডাঁই করে রাখা ছিল। সেজন্যই দ্রুত আগুন ছড়ায় বলে জানিয়েছেন দমকল বিভাগের লোকজন।

সেখানকার বহু শ্রমিক প্রাণ বাঁচাতে বাড়ি থেকে ঝাঁপ দেন বলে জানিয়েছে দি ঢাকা ট্রিবিউন। হাসেম ফুডস লিমিটেড সংস্থার দপ্তর ওই বাড়ির আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে রীতিমতো বেগ পেতে হচ্ছে ১৮টি দমকলের গাড়িকে। গলগল করে বেরোনো কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায় চারপাশ।

উদ্ধার হওয়া শ্রমিকরা, তাঁদের আত্মীয়স্বজনদের অভিযোগ, অগ্নিকান্ডের সময় ভবনের সামনের গেট ও ফ্যাক্টরি থেকে বেরনোর একমাত্র দরজা তালাবন্ধ ছিল। ৬ তলা বাড়িটিতে সুরক্ষাবিধি মেনে  সঠিক অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থাও করা ছিল না বলে অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে।

সুরক্ষাবিধি কঠোর ভাবে পালিত না হওয়ায় বাংলাদেশে হামেশাই কল-কারখানা বা বহুতলে আগুন লাগে। গত বছর ফেব্রুয়ারিতে ঢাকায় একাধিক অ্যাপার্টমেন্টে আগুন লেগে অন্ততঃ ৭০ জন মারা যান।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More