প্রধানমন্ত্রী শোনেন বেশি, বলেন কম, অন্য মোদীকে চেনালেন অমিত শাহ 

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) রাজনীতিতে পা রেখেছেন ২০ বছর হয়ে গেল। প্রধানমন্ত্রী হিসেবেও ৭ বছর পার করেছেন তিনি। কিন্তু তাঁর এই দীর্ঘ সময়ে একটি বদনাম কিছুতেই পিছু ছাড়ে না। কখনও খোলামেলা সাক্ষাৎকারে সরাসরি প্রশ্নের উত্তর দিতে শোনা যায়নি তাঁকে। এত বছরে করেননি একটিও সাংবাদিক বৈঠক।

লখিমপুরে প্রাণ গেছে দুই বিজেপি কর্মীরও, নেতারা ফিরে তাকাননি, ক্ষোভে ফুঁসছে পরিবার

কিন্তু কেন? প্রধানমন্ত্রী কি স্বৈরাচারী? সম্প্রতি এমনই প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে। আর সে প্রশ্নের চমকপ্রদ জবাবও দিয়েছেন তিনি। সাংবাদিক সম্মেলন বা সাক্ষাৎকারে বেশিরভাগ সময়েই মোদীর উপস্থিতিতে কথা বলতে দেখা গেছে অমিত শাহকে। নরেন্দ্র মোদীর রাজনৈতিক জীবনের ২০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সংসদ টিভিতে একটি সাক্ষাৎকার দেন অমিত শাহ। সেখানেই তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, কেন প্রশ্নোত্তর পর্বে সবসময় চুপ থাকেন প্রধানমন্ত্রী? কেনই না সাংবাদিক বৈঠক করেন না তিনি? প্রধানমন্ত্রী কি স্বৈরাচারী? নিজের খেয়াল মতো সিদ্ধান্ত নেন?

প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, নরেন্দ্র মোদীর মতো ভাল শ্রোতা তিনি আর কখনও দেখেননি। মোদী সব শোনেন। যেকোনও মিটিংয়েই চুপচাপ থাকেন তিনি। কথা একদম কম বলেন। কে কী বলছে, কী পরামর্শ দিচ্ছে সেসব মন দিয়ে শোনেন। সকলের সব কথাকেই গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করেন।

অমিত শাহ আরও বলেন, মোদীজি জানেন, জনতার সমর্থন তাঁর কাছে আছে। এমন কোনও অভিযোগ নেই যা এতদিনে তাঁর বিরুদ্ধে তোলা হয়নি। কিন্তু সব কিছুর সঙ্গেই খুব শান্তভাবে মানিয়ে নেন তিনি। তাই কোনও ভুল যদি হয়েও যায়, জনগণ তাঁকে ক্ষমা করে দেন। বিরোধিতা তাঁকে দুর্বল করে না, বরং করে তোলে আরও শক্তিশালী।

রবিবার সংসদ টিভিতে অমিত শাহের সাক্ষাৎকার সম্প্রচারিত হয়েছে। তিনি আরও বলেছেন, আমি বিশ্বাস করি খুব শীঘ্রই ভারত ফাইভ ট্রিলিয়ন ডলার ইকোনমির দেশে পরিণত হবে। দেশের আর্থিক উন্নতি হয়েছে। অর্থনৈতিক র‍্যাঙ্কে ভারত ১১ থেকে ৬-এ উত্তীর্ণ হয়েছে। আর কোনও প্রধানমন্ত্রী এটা করতে পারেননি।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.