মহম্মদ রফির জন্মদিনে ডাক বিভাগের বিশেষ কভারে শিল্পীকে স্মরণ

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২৪ ডিসেম্বর ছিল কিংবদন্তি সংগীতশিল্পী মহম্মদ রফির ৯৮ তম জন্মদিন। সেই উপলক্ষে ড্যাফোডিল ইনকর্পোরেটের উদ্যোগে মহাজাতি সদনে প্রয়াত শিল্পীকে শ্রদ্ধা জানাতে এক বিশেষ অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করা হয়। ভারতীয় ডাক বিভাগের সৌজন্যে মহম্মদ রফির ছবি দিয়ে এক বিশেষ কভারও প্রকাশ করা হয় এইদিন।অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা ডাকঘরের পোস্টমাস্টার জেনারেল নীরজ কুমার, ড্যাফোডিল ইনকর্পোরেটের ম্যানেজিং ডিরেক্টর রুদ্র সেন, ঝুমকি সেন, সংগীতশিল্পী রূপঙ্কর বাগচী, কল্যাণ সেন বরাট, পন্ডিত মল্লার ঘোষ প্রমুখ। দ্বিতীয় পর্বে আয়োজন করা হয়েছিল ‘তেরে নাম কা দিওয়ানা-সিজন টু’ এক বিশেষ সঙ্গীতানুষ্ঠানেরও।সুদীর্ঘ চার দশক ভারতীয় সঙ্গীত ভুবনের প্রায় একচ্ছত্র অধিপতি ছিলেন মহম্মদ রফি। তিনি ছিলেন সমগ্র উপমহাদেশে অন্যতম জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব। শাস্ত্রীয় সঙ্গীত, দেশাত্মবোধক গান, ঠুমরি, কাওয়ালি, ভজন, গজল- কী গাননি তিনি! উর্দু ও হিন্দি গানের পাশাপাশি বাংলা গানের সঙ্গেও মহম্মদ রফির নিবিড় যোগাযোগ ছিল যা প্রায় সকলেরই জানা। নজরুল গীতি থেকে আধুনিক বাংলা গান সবেতেই ছিল তাঁর স্বচ্ছন্দ বিচরণ। উত্তম কুমার-সুচিত্রা সেন অভিনীত ইন্দ্রাণী ছবিতে ‘সবহি কুছ লুটাকর’ শীর্ষক হিন্দি গানটিও তাঁরই কণ্ঠে গাওয়া।আর ঠিক দু’বছর পরে শিল্পীর জন্ম শতবার্ষিকী। এমন সময় কলকাতা থেকে শিল্পীর সম্মানে এই বিশেষ উদ্যোগ নেওয়ায় বেশ খুশি ড্যাফোডিল ইনকর্পোরেটের কর্ণধার রুদ্র সেন। মহাজাতি সদনের অনুষ্ঠানে কথাপ্রসঙ্গে তিনি জানালেন, ‘খুবই গর্ব অনুভব করছি। এমন একটা মুহূর্ত জীবনে যে আসবে ভাবিনি। আমি খুবই খুশি ভারতীয় ডাক বিভাগের সহযোগিতায় এরকম একটা দিনে মহম্মদ রফিকে নিয়ে এই স্পেশাল কভার প্রকাশ হল। পাশাপাশি আমরা কৃতজ্ঞ ভারতীয় ডাক বিভাগের কাছে।’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.