আদানির বন্দরে পাকিস্তানি জাহাজে বোঝাই তেজস্ক্রিয়, যাচ্ছিল চিনে

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মাদকের পরে এবার তেজস্ক্রিয় পদার্থ (radioactive)? ফের খবরের শিরোনামে গুজরাতের মুন্দ্রা বন্দর, যেটি পরিচালনা করে আদানি গোষ্ঠী।

গত সেপ্টেম্বর মাসে ১৯ হাজার কোটি টাকা দামের প্রায় তিন টন হেরোইন বাজেয়াপ্ত হয়েছিল এই মুন্দ্রা বন্দর থেকেই। সেই ঘটনার তদন্ত এখনও চলছে। আফগানিস্তান থেকে মাদক আমদানি করা হয়েছিল বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা। তার মধ্যেই এবার পাকিস্তান থেকে আসা একটি জাহাজে তেজস্ক্রিয় পদার্থ উদ্ধার হল। জাহাজটি পাকিস্তান থেকে যাচ্ছিল চিনের সাংহাইতে।

জাহাজ থেকে উদ্ধার হওয়া তেজস্ক্রিয় বিপজ্জনক নয় বলেই দাবি করেছে আদানি গোষ্ঠী। শুক্রবার আদানি গ্রুপের তরফে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়, কেন্দ্রীয় শুল্ক বিভাগ ও রাজস্ব গোয়েন্দা বিভাগ (ডিআরআই) একটি বিদেশি জাহাজ থেকে তেজস্ক্রিয় বাজেয়াপ্ত করেছে, কিন্তু সেগুলো বিপজ্জনক নয়।

মমতার রাজ্যেই পুরভোটে ইভিএমে থাকছে না ভিভিপ্যাট, ভোট চুরির আশঙ্কা বিরোধীদের

গৌতম আদানির মুন্দ্রা বন্দর থেকে মাদক উদ্ধারের ঘটনাকে ঘিরে এখনও জোরদার তদন্ত চলছে। ১৯ হাজার কোটি টাকার মাদক পাচারে তালিবান-আফগানিস্তান-পাকিস্তান যোগ রয়েছে বলে সন্দেহ ডিআরআই অফিসারদের। কন্টেনারে করে সেই মাদক চালান করা হচ্ছিল বলে অভিযোগ। কন্টেনারে পাউডারের নীচে মাদক লুকিয়ে চালান করা হচ্ছিল। সেই ঘটনায় অন্ধ্রপ্রদেশ থেকে এক দম্পতিকে গ্রেফতারও করা হয়েছে। ওই দুজনের হাত দিয়েই কন্টেনার চালান করা হচ্ছিল বলে মনে করছেন তদন্তকারীরা। এর মধ্যেই আবার পাকিস্তান থেকে আসা জাহাজে তেজস্ক্রিয় পদার্থ উদ্ধার হল। কী ধরনের তেজস্ক্রিয় চালান হচ্ছিল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.