‘মিলে সুর মেরা তুমহারা…’, কালজয়ী গান নিয়ে রেলের দ্বিতীয় ভিডিও

1

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ‘মিলে সুর মেরা তুমহারা…’ কালজয়ী এই গান ভারতের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা আছে। দেশের ১৪টি ভাষায় এই গান গাওয়া হয়। ভারতীয়দের মধ্যে ঐক্য-সংহতীকে উৎসাহিত করতে দেশের প্রথম মেট্রো রেল কলকাতা মেট্রোকে নিয়ে গানটির ভিডিও (Music Video) চিত্র প্রকাশ করেছিল কেন্দ্রীয় সরকার। সেই গানের লিরিক্সকে অপরিবর্তিত রেখে নতুন করে গানটি মানুষের সামনে আনল ভারতীয় রেল (Indian Railway)।

নতুন গানটি রেল কর্মচারীদের গলায় শোনা যাবে। এই গানের ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে সারা দেশে ছড়িয়ে থাকা বিভিন্ন জায়গার রেল কর্মচারীদের। আছেন রেলের হয়ে খেলোয়াড়, টোকিও অলিম্পিকে মেডেল প্রাপকরা, রেল মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী। এবং অবশ্যই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে এই মিউজিক ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়। দেশের ৭৫ তম স্বাধীনতা উপলক্ষ্যে সারা দেশে আজাদি কা অমৃতৎসব পালন হচ্ছে। সেই কর্মসূচির অংশ হিসেবে নতুন করে এই গানটি প্রকাশ করা হয়।

উল্লেখ্য, ১৯৮৮ সালে স্বাধীনতা দিবসে তৎকালীন কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে পীযুষ পাণ্ডের কথায় ও ভিমসেন জোশীর সুরে প্রথম গানটি প্রকাশিত হয়। গানের প্রতিটি কথায় ও সুরে আছে ভারতবর্ষের কোণা-কোণার গন্ধ।

আরও পড়ুনঃ দুস্থ শিশুদের জন্য জামা কাপড় নিয়ে এবার বাঁশপাহাড়িতে মনীন্দ্রচন্দ্রের সাংবাদিকতা বিভাগ

বিভিন্ন জায়গার নামজাদা শিল্পীরা এই গানে অংশগ্রহণ করেছিলেন। গেয়েছিলেন লতা মঙ্গেশকর, কবিতা কৃষ্ণমূর্তি, সুচিত্রা সেন, আনন্দ শঙ্কর, ভিমসেন জোশীর মতো আরও অনেক কালজয়ী শিল্পীরা। ভিডিওতে উঠে এসেছিলেন তৎকালীন বহু নামজাদা শিল্পী। অমিতাভ বচ্চন, হেমা মালিনী, মিঠুন চক্রবর্তী, কামাল হাসান, শর্মিলা ঠাকুর সহ অনেকে। ছিলেন নীরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়, জাভেদ আখতার। এছাড়াও খেলাধুলার জগতে ছিলেন অরুণ লাল, প্রকাশ পাড়ুকোন, পিকে ব্যানার্জির মতো নামজাদারা।

সেই ইতিহাসকে নতুন করে উপস্থাপন করল ভারতীয় রেল। রেলের বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ক্ষেত্রে অর্জন ও প্যান ইন্ডিয়ার মতো প্রকল্পকে তুলে ধরার জন্য এই ভিডিও আনা হল। এই মিউজিক ভিডিওটি ১৩টি বিভিন্ন ভাষার উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। যা সত্যিই অভাবনীয়।

তবে এই ভিডিও ঘিরে দেশের বিভিন্ন মহলে তৈরি হয়েছে ভিন্ন মত। কালজয়ী গানটিতে ছিলেন তৎকালীন বহু নামজাদা শিল্পী। তাঁদের অনেকেই আজ জীবিত নেই। এই গানের মধ্যে দিয়েই তাঁরা অমর হয়ে আছেন দেশবাসীর মনে। সেই গানটিকে নতুন রূপে ব্যবহার করার যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ। তাদের বক্তব্য, দেশাত্মবোধক অনেক গান আছে। রেলের কর্মচারীদের নিয়ে তেমন একটি গানের করাই যেতে পারতো। স্বাধীনতার ৭৫তম বর্ষে বরং কালজয়ী ভিডিওটিকে দেখানোর ব্যবস্থা করলে আরও ভালো হত।

রইল নতুন গানের ভিডিওটি-

You might also like
1 Comment
Leave A Reply

Your email address will not be published.