সরকারি মেডিকেল কলেজে শূন্যপদ পূরণের উদ্যোগ নিচ্ছে কেন্দ্র

দ্য ওয়াল ব্যুরো : সরকারি মেডিকেল কলেজ ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে বছরের পর বছর অনেক পদে নিয়োগ হয়নি। ন্যাশনাল মেডিকেল কমিশন (NMC) জানাল, বিষয়টিকে তারা যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখছে। কিছুদিনের মধ্যেই বিভিন্ন মন্ত্রকের মুখ্যসচিবরা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠকে বসবেন। তখন এই প্রসঙ্গ তোলা হবে। ইতিমধ্যে প্রতিটি সরকারি মেডিকেল কলেজ ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে চিঠি দিয়েছে এনএমসি। তাতে বলা হয়েছে, সেখানে এত পদ শূন্য পড়ে থাকার বিষয়টি উদ্বেগজনক।

এনএমসি-র প্রফেসর জি সূর্যনারায়ণ রাজু গত ১১ অক্টোবরের ওই চিঠিতে লিখেছেন, “বিভিন্ন ও মেডিকেল কলেজ ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আবেদন করেছে, তারা আন্ডার গ্রাজুয়েট, পোস্ট গ্রাজুয়েট এবং সুপার স্পেশালিটি স্তরে কয়েকটি কোর্স চালু করতে চায়। কিন্তু আমরা লক্ষ করেছি, ওই কোর্সগুলির জন্য তাদের উপযুক্ত শিক্ষক নেই। সেইসঙ্গে উপযুক্ত যন্ত্রপাতিও নেই। কোনও কোর্সের মান বজায় রাখতে হলে যা যা সরকার, তার কিছুই নেই ওই প্রতিষ্ঠানগুলিতে।”

এনএমসি বিভিন্ন মেডিকেল কলেজের ডিন, প্রিন্সিপাল ও ডিরেক্টরের কাছে আবেদন জানিয়েছে, তাঁরা যেন দ্রুত জানান, সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে কতগুলি পদ শূন্য আছে এবং কোন কোন যন্ত্রপাতির অভাব রয়েছে।

দেশে বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে মেডিকেল কলেজগুলিতে দ্রুত নিয়োগ করা দরকার বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা। দেশে এখন উৎসবের মরশুম চলছে। আর তাই টিকাকরণ প্রক্রিয়ায় কিছুটা ঢিলেমি এসেছে সাময়িকভাবে। তবে আগামী সপ্তাহের মধ্যেই ১০০ কোটি ভ্যাকসিনের লক্ষ্যমাত্রা ছুঁতে পারবে ভারত, আশাবাদী কেন্দ্র। হয়তো লক্ষ্যপূরণ হবে সোমবার কিংবা মঙ্গলবারের মধ্যেই।

দেশ জুড়ে ১০০ কোটি ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রাথমিক লক্ষ্য নিয়েছিল কেন্দ্র সরকার। অক্টোবরেই তা পূরণের পথে। পরিসংখ্যান বলছে এখনও পর্যন্ত গোটা দেশে ৯৬.৭৫ কোটি ভ্যাকসিন দেওয়া সম্পন্ন হয়েছে। বাকি রয়েছে ৩ কোটির কিছু বেশি।

লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে এবার কোমর বেঁধে নামছে বিজেপি। আর প্রাথমিকভাবে তাদের টার্গেটে থাকছে ভোটমুখী পাঁচ রাজ্য। গুজরাত, গোয়া, উত্তরপ্রদেশ, পাঞ্জাব এবং উত্তরাখণ্ড, এই পাঁচ রাজ্যে ভোট দরজায় কড়া নড়ছে। এই সমস্ত রাজ্যগুলিতেই টিকাকরণে বেশি করে জোর দেওয়া হচ্ছে বলে খবর। বিজেপির তরফে তাদের নেতা মন্ত্রীদের বলা হয়েছে, দশেরার পর থেকেই এই সমস্ত রাজ্যের কোণায় কোণায় পৌঁছে গিয়ে জনসংযোগ বাড়াতে, টিকাকরণ প্রক্রিয়ার তদারকি করতে।

আগামী সপ্তাহে ১০০ কোটি ভ্যাকসিনের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হলে তা প্রধানমন্ত্রী তথা কেন্দ্রের বড় সাফল্য হিসেবেই তুলে ধরবে বিজেপি। তবে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, চলতি বছরের শেষের মধ্যেই সারা দেশে সমস্ত প্রাপ্তবয়স্কদের টিকাকরণ সম্পন্ন হবে, সেই টার্গেট পূরণ হওয়া মুশকিল। কারণ প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিকদের অনেকেই এখনও ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজই পাননি।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More