চাকরি-শিক্ষায় নিষেধাজ্ঞা, প্রতিবাদে পথে আফগান মহিলারা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আফগানিস্তান তালিবানি দখলে যাওয়ার পর থেকেই বিশেষত দেশের মেয়েদের (Afghan Woman) ভবিষ্যৎ নিয়ে আশঙ্কার মেঘ ঘনিয়েছিল। আগেরবারের তালিবানি শাসন উস্কে দিয়েছিল আফগানদের মনে। তবে তালিবানেরা কাবুলের মসনদে বসার পর আশ্বাস দিয়েছিল মহিলাদের স্বাধীনতা রক্ষা করা হবে, কাজে বাঁধা থাকবে না। কিন্তু আশ্বাসই সার, বাস্তবে তালিবানি সরকারের একের পর এক সিদ্ধান্ত গৃহবন্দি করে দিচ্ছে আফগানিস্তানে মেয়েদের ভবিষ্যৎ।

সরকারের তরফে মহিলাদের নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত জানানো না হলেও, এক একটা দফতরের দরজা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে আফগান মেয়েদের জন্য। ডুবতে বসা নাবিকদের মতো নিজেদের অধিকারের ওপর আরোপ করা বিধিনিষেধ নিয়ে ক্ষুব্ধ আফগান মহিলারা। বন্ধ হয়ে গেছে তাঁদের পড়াশুনার দরজা। ছেলেদের জন্য স্কুল খুললেও মহিলা শিক্ষক-পড়ুয়াদের জন্য এখনই কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি তালিবানি সরকার।

ধীরে ধীরে নিজেদের যোগ্যতার জোরে দেশের বিভিন্ন কাজে নিজেদেরকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন আফগান মহিলারা। গত ২০ বছর ধরে লড়াইয়ে পরে বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলেন তাঁরা। সেই অর্জনের জাহাজ ধীরে ধীরে তালিবানি শাসনে ডুবতে বসেছে।

আরও পড়ুন: আফগানিস্তানে অদ্ভুত কারণে আইপিএল সম্প্রচার নিষিদ্ধ করল তালিবান

তালিবানি সরকারের মন্ত্রণালয়ে স্থান নেই কোনও মহিলার। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ে বহু মহিলা কাজ করতেন, তাঁদের ভবিষ্যৎও অন্ধকার। পুরসভার কাজে মহিলাদের জায়গা পুরুষ দিয়ে প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। এমনকি পূর্বতন সরকারে ছিল মহিলা বিষয়ক মন্ত্রণালয়। সেটিও বন্ধ করা হয়েছে।

এই সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ আফগান মহিলারা। রবিবার প্রায় ১০-১২ জন মহিলা সংশ্লিষ্ট ভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখান। তবে তালিবানি কর্মচারীদের আগ্রাসনের কাছে মাথা নত করে ফিরে যেতে হয় তাঁদের।

সংবাদ সংস্থা এএফপিকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে বিদেশ মন্ত্রকে কাজ করা এক আফগান মহিলা জানান, “আমি মন্ত্রকের একটি পুরো বিভাগের দায়িত্বে ছিলাম। আমার সঙ্গে অনেক মহিলা কাজ করতেন সেখানে। তবে এখন আমরা সকলে কাজ হারাই।”

আফগানিস্তানের মহিলাদের অধিকার খর্ব হচ্ছে দিন দিন। এক একটি দফতরের দরজা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে মহিলাদের জন্য। স্কুলের দরজা মহিলাদের জন্য বন্ধ হয়ে যায় একপ্রকার বলাই চলে, ফের পূর্বের নীতিতেই হাঁটছে তালিবান।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More