অমিতাভর কেবিসি মডেলে আসছে মোদীর ‘ফিট ইন্ডিয়া কুইজ’

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অনুপ্রেরণায় অলিম্পিক। এবার ভারতের স্কুল ছাত্রদের জন্য নতুন কর্মসূচি শুরু করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একটি সংবাদ চ্যানেল জানাচ্ছে, অমিতাভ বচ্চনের কৌন বনেগা ক্রোড়পতি মডেলে অনুষ্ঠিত হবে ‘ফিট ইন্ডিয়া কুইজ।’ যার শুভ মহরত্‍ সেপ্টেম্বরেই।

এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের নিয়মাবলী কী?

সেপ্টেম্বর থেকে ফিট ইন্ডিয়া কুইজের জন্য স্কুল ভিত্তিক নাম রেজিস্ট্রেশন জানা গিয়েছে, দেশের সবকটি স্কুল দুজন করে ছাত্রছাত্রীদের নাম নথিভুক্ত করতে পারবে। সেই দুজন সংশ্লিষ্ট স্কুলকে প্রতিনিধিত্ব করবে। প্রতিযোগিতার প্রাথমিক স্তরে রাজ্য ভিত্তিক স্কুলগুলির কুইজ করাবে ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি। ধরা যাক একটি রাজ্য থেকে ৫০০ স্কুল প্রাথমিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করল। তাদের মধ্যে থেকে ৩২টি স্কুল উত্তীর্ণ হবে পরের রাউন্ডে।

অর্থাত্‍ প্রতিটি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ৩২টি স্কুলের মধ্যে রাজ্য স্তরের কুইজ হবে। সেখান থেকে জাতীয় স্তরের কুইজে পৌঁছতে হবে প্রশ্নের সঠিক জবাব দিয়ে। মূলত ভারতীয় খেলাধূলার ইতিহাস, ক্রীড়াবিদদের জীবনী, তাঁদের রেকর্ড,অলিম্পিকে ভারতের সাফল্যের ইতিহাস, যোগা, কমনওয়েলথ গেমস, এশিয়ান গেমস ইত্যাদি প্রভৃতি নিয়েই হবে এই কুইজ।

মডেল বিগবি-র কেবিসি:

অমিতাভ বচ্চনের সঞ্চালনা করা কুইজ শো কৌন বনেগা ক্রোড়পতি ভারতের টেলিভিশন শোগুলির মধ্যে মাইলস্টোন হয়ে রয়েছে। রোমাঞ্চে ভরা সেই অনুষ্ঠান, রুদ্ধশ্বাস জয় কিংবা অল্পের জন্য স্বপ্ন হাতছাড়া হওয়া– একটা সময় টেলিভিশন সেটের সামনে বসে কার্যত গিলত দেশবাসী। সূত্রের খবর, মোদীর ফিট ইন্ডিয়া কুইজে সেই মডেলকেই অনুসরণ করা হচ্ছে। সুইচ টিপে আগেভাগে উত্তর দেওয়া থেকে উত্তর না জানা না থাকলে হেল্পলাইন ব্যবহার– সবই থাকছে ফিট ইন্ডিয়া কুইজে।

কেন এই কুইজের ভাবনা মোদীর?

এমনিতে সরকারি কর্মসূচির পাশাপাশি ব্যক্তি নরেন্দ্র মোদীর ভাবমূর্তিকে তুলে ধরা, গণসংযোগ নতুন নয়। মন কি বাত যার অন্যতম উদাহরণ। যেখানে দেশের বিভিন্ন প্রান্তের মানুষের কাজ, সাফল্য প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতায় তুলে ধরেন। এর ফলে দুটি জিনিস হয়। এক, সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির পরিচিতি ঘটে এবং দ্বিতীয়ত, প্রধানমন্ত্রী তাঁর এবং তাঁর পরিবারের সঙ্গে যুক্ত হন।

কুইজ সম্পর্কে এমনিতেই মানুষের বিপুল আগ্রহ ও উত্‍সাহ রয়েছে। বাংলায় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সঞ্চালিত দাদাগিরির জনপ্রিয়তা এভারেস্ট সমান। স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয় স্তরে নিয়মিত কুইজ করানো উদ্বালোক মুখোপাধ্যায় বলেন, কুইজ খেলাচ্ছলে একসঙ্গে অনেক মানুষের কাছে পৌঁছে যাওয়ার মাধ্যম। যেখানে প্রতিযোগীদের পাশাপাশি তাঁদের অভিভাবক ও আত্মীয়পরিজনরাও সমান উত্‍সাহিত থাকেন। প্রধানমন্ত্রী হয়তো সেই ভাবনা থেকেই কুইজকে মাধ্যম হিসেবে বেছে নিতে চেয়েছেন।”

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More