হইহই বৌদি, থইথই বৈশাখী, একুশজুড়ে সোশ্যাল মিডিয়া শাসন করেছে যারা

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: হাতে হাতে ফোন। আর তার স্ক্রিন জুড়ে কতই না ভিডিও! কোভিডের দাপট, লকডাউন কিংবা চারদিক তছনছ করে দেওয়া ঘূর্ণিঝড়, কোনওকিছুতেই সোশ্যাল মিডিয়া থেমে নেই। পৃথিবীর কোণা কোণা থেকে দুনিয়ার সমস্ত খবর উঠে আসে মোবাইল স্ক্রিনের চার দেওয়ালে। মুহূর্তে হয়ে যায় ভাইরাল।

২০২১ সালের শেষ বেলায় এসে ফিরে তাকালে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও গুলো থেকে যেন চোখ ফেরানো যায় না। ‘মানিকে মাগে হিথে’ থেকে শুরু করে কাকলি ফার্নিচার, কী নেই সেখানে? নির্দিষ্ট সময়ে এই প্রত্যেক ভিডিওই রীতিমতো শাসন করেছে সোশ্যাল মিডিয়ার দেওয়াল। বছর শেষে আসুন আরও একবার চোখ রাখা যাক তেমন ভিডিওগুলোতে।

মানিকে মাগে হিথে

শ্রীলঙ্কার সঙ্গীতশিল্পী ইয়োহানি ডি সিলভা। বেশ কয়েক বছর ধরেই ইউটিউবে মুক্তি পায় তাঁর গান। স্থানীয় ভাষায় গাওয়া সেসব গান শ্রীলঙ্কায় বেশ জনপ্রিয়। তবে ২০২১ ইয়োহানির জীবনে নতুন সূর্য নিয়ে এসেছে। তাঁর গাওয়া ‘মানিকে মাগে হিথে’ ছাপিয়ে গেছে বঙ্গোপসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্রের সীমিত পরিধি। কাশ্মীর থেকে কাবুল, নিউ ইয়র্ক থেকে নৈনিতাল কিংবা নৈহাটি, পৃথিবীর কোণায় কোণায় ছড়িয়ে গেছে ইয়োহানির গান। ভাষা না বুঝলেও ‘মানিকে মাগে হিথে’ আপন করে নিতে অসুবিধা হয়নি কারও। দীর্ঘদিন ধরে নেট পর্দায় ঘুরে বেড়িয়েছে সেই গান আর তার ভিডিও।

রাসপুতিন

সত্তরের দশকের রাশিয়ান গান রাসপুতিনের তালে তালে কলেজ ক্যাম্পাসেই তুমুল নেচেছিলেন দুই মেডিকেল পড়ুয়া। তাঁদের সেই নাচ ব্যাপক ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ার পর্দায়। কেরলের থ্রিসুরের সেই পড়ুয়ারা হলেন নবীন রাজাক এবং জানকি ওমকুমার। অসাধারণ ছন্দে সারা কলেজ জুড়ে নেচে বেড়ানোর সেই ভিডিও অবশ্য বিতর্কেও জড়িয়েছিল। পদবী দেখে নবীন আর জানকির দিকে উঠেছিল ধর্মের তর্জনী। তবে বহুদিন পর্যন্ত রাসপুতিনের তালে তালে কোমর দুলিয়েছেন নেটিজেনরা, তাতে সন্দেহ নেই।

বাচপান কা পেয়ার

সহদেব দির্দোকে মনে আছে তো? অতিমহামারীর সময় ‘বাচপান কা পেয়ার’ গান গেয়ে নেট দুনিয়া মাত করে রেখেছিল সে। র‍্যাপের ধাঁচে গাওয়া সেই গান নাড়িয়ে দিয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়া। ব্যাপক ভাইরাল হয়েছিল একরত্তি সহদেবের গান।

কাকলি ফার্নিচার

এবছরের সম্ভবত সবচেয়ে জনপ্রিয় ভাইরাল ভিডিওটি ‘কাকলি ফার্নিচার’। বাংলাদেশের এক ফার্নিচার কোম্পানির বিজ্ঞাপন নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় বয়ে গেছে। গোটা ভিডিওতে একটাই লাইন বারবার বলা হয়েছে, ‘দামে কম, মানে ভাল, কাকলি ফার্নিচার’। তারপর থেকে তারকাদের পোস্টের কমেন্ট বাক্স হোক কিংবা কোনও গুরুত্বপূর্ণ ঘটনার খবর, সব জায়গাতেই ঘুরে বেড়াচ্ছিল এই একটাই লাইন।

ভুবনের কাঁচা বাদাম

বেচতে যে কত সুখ, তা একসময় দইওয়ালাকে শিখিয়েছিল ঘরবন্দি অমল। আর ২০২১ সালে বীরভূমের কাঁচা বাদামওয়ালা ভুবন বাদ্যকর শেখালেন কত আনন্দ ছড়িয়ে দেওয়া যায় বাদাম বেচতে বেচতে। আর পাঁচটা সাধারণ বিক্রেতার মতো কাঁচা বাদামের ঝুলি নিয়ে বাড়ি বাড়ি ঘোরেননি ভুবন। তিনি গান বেঁধেছেন। ভুবনভোলানো সেই গান ছড়িয়ে গেছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। তারপর সে গান ঘুরেছে লোকের মুখে মুখে। গানে ভুবন ভরিয়ে দিয়ে তিনি জোর দিয়ে জানিয়েছেন তাঁর কাছে কোনও ভাজা বাদাম পাওয়া যাবে না। পাওয়া যাবে কেবল কাঁচা বাদাম। ভুবনের গান শুনে বহু মানুষ তাঁর কাছে পৌঁছে গেছেন বাদাম কিনতে।

আলু পোস্ত

বছরের মাঝামাঝি সময়ে আলু পোস্ত রান্নার সেই ভিডিও যেভাবে ভাইরাল হয়েছিল তা ভোলার নয়। বছরের সেরা সেরা ভাইরাল ভিডিওর তালিকায় তা থাকবেই। কী ছিল সেই ভিডিওতে? তাতে আলু-পোস্ত রান্না করছেন এক মহিলা। কিন্তু সেই রান্নার রেসিপি কতজন মন দিয়ে দেখেছেন তাতে সন্দেহ আছে। কারণ সারা ভিডিও জুড়ে শরীরী উষ্ণতা ছিল মাখামাখি। স্বল্প পোশাকে খুন্তি নাড়াচ্ছিলেন তিনি। ছড়িয়ে দিচ্ছিলেন লাস্যময়ী আবেদন।

শোভন-বৈশাখীর নাচ

‘মম চিত্তে নিতি নৃত্যে…’ রবি ঠাকুরের গানে এবছরই কোমর দুলিয়েছেন শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। দ্য ওয়ালের পুজো শ্যুটে তাঁদের সেই নাচ সোশ্যাল মিডিয়া কাঁপিয়ে দিয়েছিল। রাস্তার মোড়ে মোড়ে, মেট্রোয়, বাসে কিংবা সন্ধ্যার ড্রইংরুমে, পুজোর আমেজে তাঁদের সেই ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছিল হু হু করে। শুধু তো নাচ নয়, সোমাদির কাছে মনের কথা খুলে বলেছিলেন বাংলার রাজনীতিতে অন্যতম চর্চিত এই যুগল। ভাইরাল হয়েছিল দ্য ওয়ালের পর্দায় তাঁদের সবকটি পুজো শ্যুটের ভিডিও।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.