ইয়েদুরাপ্পার বিকল্প হিসাবে বাসবরাজ বোম্মাইকে বাছল বিজেপি, তিনিও লিঙ্গায়েত গোষ্ঠীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কর্নাটকের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে বাসবরাজ বোম্মাইকে বাছাই করল বিজেপি। পদত্যাগী মুখ্যমন্ত্রী বিএস  ইয়েদুরাপ্পা মন্ত্রিসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন বাসবরাজ। গতকাল সপ্তাহখানেকের জল্পনার অবসান ঘটিয়ে মুখ্যমন্ত্রী পদ ছাড়েন ইয়েদুরাপ্পা। তাঁর বিকল্পের খোঁজে মঙ্গলবার বিকালে কর্নাটক বিজেপি পরিষদীয় দলের বৈঠক বসে। বেঙ্গালুরুর বৈঠকে দলের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক হিসাবে হাজির ছিলেন ধর্মেন্দ্র প্রধান ও জি কিষাণ রেড্ডি।

ইয়েদুরাপ্পার মতো বাসবরাজও রাজনৈতিক ভাবে প্রভাবশালী লিঙ্গায়েত সম্প্রদায়ের প্রতিনিধি। ইয়েদুরাপ্পার ঘনিষ্ঠ শিবিরের সদস্য তিনি।

কর্নাটকের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী  এস আর বোম্মাইয়ের ছেলে বাসবরাজ জনতা দল ইউ ছেড়ে বিজেপিতে নাম লেখান। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মত, আরও এক দলছুট কে পুরস্কার দিল বিজেপি, কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী পদে বসিয়ে।

ইয়েদুরাপ্পা সরে যাওয়ায়  অসন্তুষ্ট লিঙ্গায়েতরা, যারা বিজেপির বড় ভোটব্যাঙ্ক। ফলে ইয়েদুরাপ্পার পরিবর্ত হিসাবে সেই গোষ্ঠীরই একজনকে বাছতে হল বিজেপিকে। লিঙ্গায়েত ধর্মগুরুরা, এমনকী বিরোধী কংগ্রেসের  কয়েকজনও চেয়েছিলেন, ইয়েদুরাপ্পাই থাকুন মুখ্যমন্ত্রী পদে। গতকালই ইয়েদুরাপ্পা ইস্তফা দিয়ে জানান, কেউ তাঁকে বাধ্য করেনি। তবে বিদায়ী ভাষণে আবেগপ্রবণ হয়ে বলেন, গত ২বছরে তাঁকে বারবার পরীক্ষার মুখে পড়তে হয়েছে।

সূত্রের খবর, গত ১০ জুলাই ইস্তফা দিয়েছিলেন ইয়েদুরাপ্পা। তাঁর ঘনিষ্ঠ এক সিনিয়র নেতা তাঁর পদত্যাগপত্র দিল্লি নিয়ে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে মোদীকে দেন। কিন্তু প্রকাশ্য়ে ইস্তফা দেওয়া পর্যন্ত সাসপেন্স বজায় রাখেন ইয়েদুরাপ্পা। এমনকী তিনি সর্বোচ্চ  নেতৃত্বের কাছ থেকে নিজের অনুকূলে কোনও সিদ্ধান্তের প্রত্যাশায় ছিলেন বলে একটি সূত্রের দাবি। আরেকটি  সূত্র জানাচ্ছে, ইয়েদুরাপ্পা ও তাঁর ছেলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ পুঞ্জীভূত হচ্ছিল। তার মধ্যেই তিনি দিল্লি গিয়ে প্রধানমন্ত্রী সহ বিজেপি নেতাদের সঙ্গে দেখা করেন।

কর্নাটকে বিজেপি ক্ষমতায় আসে তাঁর নেতৃত্বে। ২০১৯ সালে নাটকীয় ভাবে তিনি চতুর্থবার মুখ্যমন্ত্রী  হন। জনতা দল সেকুলার-কংগ্রেস জোট সরকার উল্টে যায় ১৭  বিধায়ক বিদ্রোহ করে ইস্তফা দেওয়ায়। এদের বেশিরভাগই বিজেপিতে যোগ দেন, অনেকে ইয়েদুরাপ্পা সরকারে মন্ত্রী হন।

 

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More