২০২১-২২ এ সাড়ে ১২ থেকে কমে ৯.৫ শতাংশ, ভারতের বৃদ্ধির হারের পূর্বাভাস দিল আইএমএফ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২০২১-২২ অর্থবর্ষে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির হার পূর্বনির্ধারিত সাড়ে ১২ থেকে কমে সাড়ে ৯ শতাংশ হতে পারে বলে পূর্বাভাস আন্তর্জাতিক অর্থ ভান্ডারের (আইএমএফ)।  তাদের মুখ্য অর্থনীতিবিদ গীতা গোপীনাথের মতে, ব্যাপক ছোঁয়াচে করোনাভাইরাসের ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের  দাপট গোটা দুনিয়ায় দেখা যাচ্ছে।  করোনাভাইরাসের চরিত্রে গুরুত্বপূর্ণ বদল হয়েছে। আর্থিক বৃদ্ধির পূর্বাভাসের বদলে তারই প্রতিফলন রয়েছে।

এক ব্লগ পোস্টে গীতা লিখেছেন, যেখানে প্রত্যাশার চেয়েও দ্রুত হারে ভ্যাকসিন দেওয়ার কাজ হয়েছে, স্বাভাবিক পরিস্থিতি ফিরেছে, সেখানে উন্নতির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে, কিন্তু যেখানে ভ্যাকসিন সহজে মিলছে না, বিশেষতঃ ভারত সহ কয়েকটি দেশে কোভিড ১৯ সংক্রমণের নতুন ঢেউ আসছে, সেখানে পূর্বাভাস বৃদ্ধির হার কমানো হয়েছে।

অন্যদিকে ২০২২ এর ক্ষেত্রে সম্ভাব্য বৃদ্ধির হার আগের ৬.৯ থেকে বাড়িয়ে সাড়ে ৮ শতাংশ ধার্য করেছে আইএমএফ।

চলতি বছরের বাজেট অধিবেশনের আগে জানুয়ারিতে সংসদে পেশ হওয়া আর্থিক সমীক্ষা রিপোর্টে ২০২১-২২ অর্থবর্ষে ভারতে বৃদ্ধির হার ১১ শতাংশ হওয়ার পূর্বাভাস ছিল। তবে এই উচ্চ হারে বৃদ্ধির হিসাব দেখানো হয়েছিল লোয়ার বেসের ভিত্তিতে। ২০২০-২১ এ ভারতের গ্রস ডোমেস্টিক প্রোডাক্ট বা জিডিপি সংকোচন হয়েছিল ৭.৩ শতাংশ।

অর্থনৈতিক কার্যকলাপ ফের চালু হওয়ায় দুনিয়াব্যাপী অর্থনীতির পুনরুজ্জীবন অব্যাহত রয়েছে। কিন্তু উন্নত অর্থনীতি ও উন্নয়নশীল অর্থনীতির মধ্যে ‘ক্রমবর্ধমান ফারাকে’র উল্লেখ করেন গীতা। বলেন, ২০২১ এর সর্বশেষ ৬ শতাংশ বিশ্বব্যাপী বৃদ্ধির পূর্বাভাস অপরিবর্তিত রয়েছে, কিন্তু তার গঠন বা কম্পোজিশন বদলেছে।

আইএমএফ বলেছে, একদিকে ভ্যাকসিনেশন কর্মসূচিতে জোর দিয়ে কোভিড ১৯ তুলনামূলক  ভাল মোকাবিলার ফলে উন্নত অর্থনীতিগুলিকে তাদের বৃদ্ধির হারের পূর্বাভাস ০.৫ শতাংশ বাড়াতে সাহায্য করেছে। কিন্তু সেই উন্নতির সম্ভাবনা ম্লান হয়ে গিয়েছে নতুন, নতুন বাজার ও উন্নয়নশীল অর্থনীতিগুলির বৃদ্ধির হার নিম্নমুখী হওয়ার ফলে।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More