ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মী নিগ্রহে এফআইআর, দ্রুত ব্যবস্থা নিতে সব রাজ্য, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলকে চিঠি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিবের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নানা রাজ্যে ডাক্তার ও স্বাস্থ্যকর্মীদের ওপর হামলা, হিংসা বেড়ে যাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে শুক্রবারই ইন্ডিয়ান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (আইএমএ) দেশব্যাপী প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে।  ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মীদের রক্ষায় কেন্দ্রীয় আইন রূপায়ণের দাবি করে ডাক্তারদের সংগঠনটি। কোভিড ১৯ অতিমারীর দ্বিতীয় ঢেউয়ে প্রায় ৭৩০ জন ডাক্তার ভাইরাস সংক্রমণের বলি হয়েছেন বলেও জানিয়েছে তারা।

পরদিনই স্বাস্থ্যকর্মীদের নিগ্রহে জড়িতদের বিরুদ্ধে সব রাজ্য, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে কঠোর ব্যবস্থা নিতে বললেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লা। তিনি এ ধরনের আক্রমণের ঘটনাকে গভীর গুরুত্ব দিতে বলেছেন রাজ্য, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের প্রশাসনকে। সব রাজ্যের মুখ্যসচিব ও প্রশাসকদের লেখা চিঠিতে তিনি বলেছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যকর্মীদের নিগ্রহকারীদের বিরুদ্ধে প্রাতিষ্ঠানিক এফআইআর দায়ের করে সেই মামলা ফাস্ট ট্রাক করা উচিত। যেখানে যেখানে প্রযোজ্য, সেখানে  অতিমারী রোগ (সংশোধনী) আইন, ২০২০র ধারা কার্যকর করা যেতে পারে। পরিস্থিতি আরও ঘোরালো করে তুলতে পারে, সোস্যাল মিডিয়ায় এমন যে কোনও আপত্তিকর কনটেন্টের দিকেও রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত এলাকার প্রশাসনকে কড়া নজর রাখতে বলেছেন তিনি।  তাঁর পরামর্শ, প্রশাসন হাসপাতালে পোস্টার মেরে, সোস্যাল মিডিয়ায় প্রচার চালিয়ে শতাব্দীতে সবচেয়ে বড় বিপর্যয় ঘটানো করোনাভাইরাস অতিমারী কালে ডাক্তার, স্বাস্থ্যকর্মীদের অবদানের কথা মানুষের সামনে গুরুত্ব সহকারে প্রচার করুক।   তিনি আরও লিখেছেন, রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিকে আবেদন করছি, যেন অগ্রাধিকার দিয়ে এসব পদক্ষেপ করা হয়, চিকিত্সক সমাজ, স্বাস্থ্যকর্মীদের সঙ্গে সক্রিয়ভাবে হাত মিলিয়ে তাঁদের ভীতি, উদ্বেগ দূর করা হয়।

ভাল্লা চিঠিতে আরও উল্লেখ করেছেন, কেন্দ্রের গত ২৭ এপ্রিল, ৯ জুনের পরামর্শেও স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলি, বিশেষত কোভিড চিকিত্সার হাসপাতালগুলিতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তার আয়োজন করতে, এসব ভবনে প্রবেশাধিকার নিয়ন্ত্রিত, সীমিত রাখতে বলা হয়েছিল। বিপজ্জনক জায়গাগুলিতে কুইক রেসপন্স পুলিশ টিম নিয়োগ, মনিটরিংয়ের জন্য কেন্দ্রীয় স্তরে কন্ট্রোল  রুমের বন্দোবস্তের পরামর্শও ছিল। বিহার, পশ্চিমবঙ্গ, অসম, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, কর্নাটকের মতো একাধিক রাজ্যে কোভিড ওয়ার্ডে দিনরাত এক করে রোগীদের চিকিত্সা করে চলা ডাক্তারদের ওপর বেশ কয়েকটি হামলার নজির রয়েছে।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More