ইউপির ভোটে যোগীর সঙ্গে জড়িয়ে মোদীরও ভাগ্য, আজ দিনভর বারাণসীতে প্রধানমন্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: আগামী বছর বিধানসভা ভোটের আগে উত্তরপ্রদেশে উন্নয়নের জোয়ার আনতে চাইছে বিজেপি। তারই ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে আজ বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যাচ্ছেন নিজের লোকসভা কেন্দ্র বারাণসীতে। উত্তর প্রদেশে বিধানসভার ভোটের বাজনা বাজতে শুরু করেছে। যোগীই থাকছেন বিজেপির মুখ। তাঁর মুখ চেয়েই আজ দিনভর বারাণসীতে থাকবেন মোদী। একাধিক উন্নয়নমূলক প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন।

বারাণসীর জন্য মোদী নিয়ে আসছেন দেড় হাজার কোটি টাকারও বেশি প্রকল্পের উপহার। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, রাজ্যে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তি প্রস্তুর স্থাপন করবেন মোদী। বস্তুত, মে মাসে পঞ্চায়েত ভোটে ধাক্কা খাওয়ার পরে নড়েচড়ে বসেছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। পশ্চিমবঙ্গে সর্বতোভাবে চেষ্টার পরেও হার স্বীকার করতে হয়েছে বিজেপিকে। এবার উত্তরপ্রদেশের বিধানসভা ভোটই পাখির চোখ কেন্দ্রীয় বিজেপি নেতৃত্বের। উত্তরপ্রদেশের রাজনীতি সর্বভারতীয় রাজনীতির অভিমুখ নির্ধারণ করে। গো-বলয়ের গর্ভগৃহ বলা যায় উত্তরপ্রদেশকে। কিন্তু বিগত এক বছরে উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের ওপরে রাজ্যবাসীর ক্ষোভ বেড়েছে।

রাজনৈতিক সূত্রের মতে, কোভিডের দ্বিতীয় ধাক্কায় তা আরও পুঞ্জীভূত হয়েছে। এই অবস্থায়, রাজ্যে বাইশের বিধানসভা ভোটের আগে কী ভাবে প্রধানমন্ত্রী এবং মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের ভাবমূর্তি আগের জায়গায় ফিরিয়ে নেওয়া যায়, তা এখন বিজেপি নেতৃত্ব এবং সরকারের অগ্রাধিকার বলেই মনে করা হচ্ছে।

২০২৪-এর লোকসভা ভোটের সেমিফাইনাল হিসেবেই দেখা হচ্ছে উত্তর প্রদেশের বিধানসভা ভোটকে। আগামী বছর ওই ভোটের ফলাফলের উপরেই এখন নজর দেশের। তাই বিরোধ দূরে রেখে এখন যোগীর পাশে থাকারই চেষ্টা করছেন মোদী।

এই পরিপ্রেক্ষিতে এখন মোদীর বারাণসী সফর খুবই গুরুত্বপূর্ণ। জানা গেছে, বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসূচীর ঘোষণা করে আজ একটি জনসভা করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী। গঙ্গা নদীকে ঘিরে পর্যটন উন্নয়নের জন্য রো-রো ভেসেলস, গাজিপুরে তিন লেনের ফ্লাইওভার ব্রিজ-সহ বিভিন্ন সরকারি প্রকল্প ও কাজের উদ্বোধন করবেন মোদী। পাশাপাশি, গোধুলিয়ায় মাল্টি-লেভেল পার্কিং প্লেস, , গঙ্গায় পর্যটন তরণী, ‘জল জীবন মিশন’-এর আওতায় ১৪৩টি গ্রামীণ প্রকল্প ও বিভিন্ন প্রযুক্তি কেন্দ্রের পরিকাঠামো প্রকল্পের শিল্যান্যাসও করবেন তিনি।

জাপানের সাহায্যে নির্মিত ‘রুদ্রাক্ষ’ নামে একটি আন্তর্জাতিক কো-অপারেশন ও কনভেনশন সেন্টারেরও উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী। এরই পাশাপাশি, বিএইচইউতে ১০০ শয্যার এমসিএইচ শাখা তৈরি করবেন। সেখানে প্রসূতি ও শিশু স্বাস্থ্য বিভাগ পরিদর্শন করবেন।

কোভিড পরিস্থিতি মোকাবিলায় সেখানকার চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য অধিকর্তাদের সঙ্গে আলোচনাও করবেন প্রধানমন্ত্রী।
রাজনৈতিক সূত্রের মতে, শুধুমাত্র বিরোধীরাই নন, বিজেপির অভ্যন্তরেও গভীর অসন্তোষ দানা বেঁধেছে যোগী সরকারের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলা নিয়ে। রাজনাথ সিংহ, নিতিন গডকড়ীর মতো নেতারাও চুপ করে আছেন। পাশাপাশি, উত্তরপ্রদেশের শাসনব্যবস্থাও পুরোপুরি ভেঙে পড়েছে বলে অভিযোগ করেছেন সে রাজ্যেরই প্রাক্তন আমলা ও পুলিশ কর্তাদের একাংশ। রাজ্য সরকারকে লেখা খোলা চিঠিতে তাঁরা আগেই জানিয়েছিলেন, নাগরিকদের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হচ্ছে। প্রতিবাদীদের ওপর পুলিশি অত্যাচার নিত্তনৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এনকাউন্টারের রাজনীতি চলছে রাজ্যে, শান্তিপূর্ণ মিছিলেও পুলিশি হামলা চলছে। গো-হত্যা এবং ‘লভ জিহাদ’-এর অভিযোগে রাজ্যের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে নিশানা করা হচ্ছে। এইসব নিয়েই যোগীর ভাবমূর্তি আজ বিপর্যস্ত। সেই ড্যামেজ কন্ট্রোলেই এবার বিজেপি সর্বশক্তি দিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More