সূঁচ ফুটবে না, ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের রোগ সারাতে কম দামে খাওয়ার ওষুধ আনছেন আইআইটির বাঙালি বিজ্ঞানী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ সারাতে দেশে এখন দামি অ্যাম্ফোটেরিসিন বি ওষুধই পাওয়া যাচ্ছে। এই ওষুধের জোগান যেমন কম, তেমনই দামেও বেশি। কালো ছত্রাকের রোগ তথা মিউকরমাইকোসিসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় তাই খরচও বিপুল হচ্ছে। এই সমস্যা মেটাতে অ্যাম্ফোটেরিসিন বি ওষুধেরই অন্য ফর্মুলা নিয়ে আসছেন হায়দরাবাদ আইআইটির দুই বিজ্ঞানী। নতুন ওষুধ ট্যাবলেটের মতো খাওয়ানো যাবে রোগীকে। দামেও কম পড়বে।

হায়দরাবাদ আইআইটির কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দুই বিজ্ঞানী ডক্টর সপ্তর্ষি মজুমদার ও ডক্টর চন্দ্র শেখর শর্মা ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ সারাতে খাওয়ার ওষুধ তৈরি করেছেন। গবেষকরা বলছেন, অ্যাম্ফোটেরিসিন বি ওষুধ শিরার মধ্যে ইনজেক্ট করতে হয়। এই ওষুধ মুখে খাওয়ানো যায় না। কারণ এটি প্রচণ্ড টক্সিক। তাই নির্দিষ্ট ডোজের ইঞ্জেকশন দেওয়া হয় রোগীকে। ডোজের হেরফের হলে মারাত্মক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে। কার্ডিয়াক রোগে আক্রান্ত হতে পারে রোগী। তাই এই ওষুধের ফর্মুলা বদলে এমন ট্যাবলেট বানানো হয়েছে যা সহজেই খাওয়ানো যাবে রোগীকে। গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও হবে না।

আরও পড়ুন: দেশে প্রথম ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের ওষুধ বানাচ্ছেন গুরুগ্রামের গবেষক দম্পতি, মিউকরমাইকোসিস সারাবে ‘ফাঙ্গিসোম’

Mucormycosis Cases in India: IIT Hyderabad Researchers Ready for Transfer of Technology To Treat Black Fungus

ডক্টর সপ্তর্ষি মজুমদার বলছেন, অ্যাম্ফোটেরিসিন বি ইঞ্জেকশনের দাম ডোজ প্রতি তিন হাজার টাকার কাছাকাছি। রোগীর সংক্রমণ বেশি হলে টানা ৩০ দিন ধরে এই ইঞ্জেকশন দিতে হয়। অন্তত ৭০টি ভায়াল দরকার হয়। এই বিপুল খরচের ধাক্কা সামলাতে পারেন না অনেকেই। কিন্তু ওরাল ট্যাবলেটে এত ঝামেলা নেই। এক একটি ট্যাবলেট ৬০ মিলিগ্রাম, দাম ২০০ টাকার মতো। দেশের ২০টি ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন দুই বিজ্ঞানী। এই কোম্পানিগুলি অ্যাম্ফোটেরিসিন বি-এর ওরাল ট্যাবলেট উৎপাদন করবে।

IIT Hyderabad oral medication for black fungus

করোনা আতঙ্কের মধ্যেই ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণে নাজেহাল দেশ। কালো ছত্রাকের সংক্রমণজনিত রোগ তথা মিউকরমাইকোসিস হানা দিয়েছে দেশের অনেক রাজ্যেই। করোনা রোগীদের শরীরেই ছত্রাকের সংক্রমণ বেশি ধরা পড়ছে। এর চিকিৎসার জন্য দেশে এখন একটা মাত্রই জীবনদায়ী ওষুধ আছে যার নাম অ্যাম্ফোটেরিসিন বি। ছত্রাকের সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ওষুধের চাহিদাও বাড়ছে, সেই সঙ্গে জোগানও কমছে। ফলে চরম সমস্যার মুখে পড়েছে আক্রান্তরা। অ্যাম্ফোটেরিসিন বি ওষুধের জোগান বাড়াতে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আর্জিও জানানো হয়েছে। এই ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করেছে আদালতও।

IIT Hyderabad oral medication for black fungus
(বাঁ দিকে) ডক্টর সপ্তর্ষি মজুমদার, (ডান দিকে) ডক্টর চন্দ্র শেখর শর্মা

অ্যাম্ফোটেরিসিন বি ওষুধ ভারতে তৈরি নয়, বানিয়েছে মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি গিলিয়েড সায়েন্সেস। এই ওষুধ প্রথম দেশে নিয়ে আসেন গবেষক শ্রীকান্ত আন্নাপ্পা পাই। করোনা রোগীদের মধ্যে এখন মিউকরমাইকোসিসের সংক্রমণ দেখা যাচ্ছে, তবে এই রোগ বহুকাল আগে থেকেই ছিল। কালো ছত্রাকের সংক্রমণ আগেও হয়েছে।  এইচআইভি বা এইডসের রোগী, ক্যানসারের রোগী, অঙ্গ প্রতিস্থাপন হয়েছে যাদের বা কোনও রোগের চিকিৎসার জন্য অক্সিজেন থেরাপিতে থাকা রোগীর শরীরে ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে আগেও। এই ধরনের ছত্রাকের সংক্রমণ ঠেকাতে অ্যান্টিফাঙ্গাল ওষুধের ফর্মুলা এ দেশে তেমনভাবে ছিল না। নতুন ওষুধের ফর্মুলা তৈরি করে তার ট্রায়াল শেষ করে দেশের বাজারে চালু করার প্রক্রিয়া অনেক লম্বা। তার জন্য দীর্ঘ সময়ের গবেষণা ও ক্লিনিকাল ট্রায়ালের দরকার। তাই পুরনো ওষুধই ব্যবহার হচ্ছিল এতদিন।

IIT-Hyd Researchers Unveils Oral Solution for 'Black Fungus' - A 60 mg AmB Tablet that Costs Rs.200; Ready for Technology Transfer | IndianWeb2.com

ডক্টর সপ্তর্ষি ও ডক্টর চন্দ্র শেখর শর্মা বলছেন, লাইপোসোমাল অ্যাম্ফোটেরিসিন বি ওষুধ দিনে ৫ মিলিগ্রাম প্রতি কেজি ডোজে বা এই ওষুধের লিকুইড কমপ্লেক্স দেওয়া হচ্ছে রোগীদের। সেক্ষেত্রেও নানারকম পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। কিন্তু ট্যাবলেট জাতীয় ওষুধে সে সম্ভাবনা কম। দেশের বাজারে খুব তাড়াতাড়ি এই ওষুধ আনার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন তাঁরা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More