ইনি রাজস্থানের শিক্ষামন্ত্রী! বললেন, মহিলারা এক জায়গায় থাকলেই ঝগড়া করে, ছেলেদের স্যারিডন লাগে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কংগ্রেস, বিজেপি, বামপন্থী, যখন যারাই ক্ষমতায় থাকুক না কেন, মহিলাদের প্রতি তাদের নেতা-মন্ত্রীদের (sexist mindset) মনোভাবের বিশেষ তারতম্য হয় না, যা কখনওসখনও কিছু মন্তব্যে স্পষ্ট ফুটে ওঠে। এই যেমন রাজস্থানের কংগ্রেস সরকারের  মন্ত্রী (rajasthan education minister) গোবিন্দ সিং দোস্তারা। তিনি আবার রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী। তিনি বলেছেন, মহিলারা (women staff)এক জায়গায় থাকলেই ঝগড়া, বিবাদে জড়ান (squabbles)!

দোস্তারা রাজস্থান প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিও (pcc president)। মহিলারা ঝগড়াঝাটি নিজেদের মধ্যে মিটিয়ে নিতে পারলে সবসময় পুরুষদের ছাড়িয়ে যেতে পারবেন বলে মন্তব্য করেন তিনি।

 

সম্প্রতি আন্তর্জাতিক কন্যাসন্তান দিবসের অনুষ্ঠানে দোস্তারা বলেন, যেসব স্কুলে মহিলা শিক্ষক, কর্মী বেশি, সেখানে অনেক বেশি ঝগড়া হবেই, যার পরিণতি হয়, প্রিন্সিপাল বা পুরুষ স্টাফরা মাথা যন্ত্রণা থেকে বাঁচতে স্যারিডন খান। আমার দপ্তরের প্রধান হিসাবে বলব, কোনওদিন ছুটিছাটা নিয়ে তো আরেকদিন অন্য কোনও ব্যাপারে বিবাদ, ঝগড়াঝাটিতে জড়ান তাঁরা।

দোস্তারার দাবি, রাজস্থান সরকার সবসময় স্কুলশিক্ষিকা, মহিলা শিক্ষাকর্মীদের সুবিধা, আপদ-বিপদের কথা মাথায় রাখে, তাঁদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করে, কর্মক্ষেত্রে সুবিধামতো পোস্টিং দেয়। কিন্তু ওঁদের নিজেদের মধ্যেই সবসময় কিছু না কিছূু সমস্যা লেগেই থাকে। আমার বিশ্বাস, আপনারা ছোট ছোট বিষয়গুলি নিজেরাই ঠিক করে নিলে সবসময় পুরুষদের তুলনায় এগিয়ে থাকবেন।

দোস্তারার মন্তব্যকে নারীবিদ্বেষী আখ্যা দিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় প্রবল সমালোচনা চলছে।

সম্প্রতি তিনি সংবাদের শিরোনামে আসেন স্টেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিসেসের সিলেকশন প্রক্রিয়ায় নিজের আত্মীয়স্বজনদের অগ্রাধিকার দেওয়ার অভিযোগে। পরীক্ষায় নিজের পুত্রবধূ, তার ভাই, বোনকে সুবিধা দেন তিনি, এখবর বেরয় গত জুলাইয়ে। যদিও পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ উড়িয়ে  দেন দোস্তারা।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More