মমতাকে জয়প্রকাশ-রাজীবদের সঙ্গে একাসনে বসালেন স্বামী

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেখা করতে যাওয়ার আগেই দিল্লিতে তাঁর ডেরায় এসে তৃণমূলনেত্রীর সঙ্গে দেখা করে গেলেন বিদ্রোহী বিজেপি সাংসদ সুব্রহ্মণ্যম স্বামী। এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাউথ অ্যাভিনিউয়ের বাড়িতে সুব্রহ্মণ্যম স্বামী আসতেই জল্পনা তৈরি হয়, তাহলে কি তিনি ফুল বদল করে তৃণমূলে যোগ দিচ্ছেন?

মমতার বাড়িতে ঢোকার আগেই স্বামীকে এই প্রশ্ন করেন সাংবাদিকরা। জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি মমতার পাশেই আছি। তার জন্য দলবদল করার প্রয়োজন নেই।’

তবে মমতার সঙ্গে সাক্ষাতের পরেই স্বামী একটি টুইট করেন। যেখানে তিনি দেশের প্রাক্তন পাঁচ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে একাসনে বসিয়েছেন মমতাকে। টুইটে স্বামী লিখেছেন, “আমি যে সমস্ত রাজনীতিকদের সঙ্গে দেখা করেছি বা কাজ করেছি, সেই জয়প্রকাশ নারায়ণ, মোরারজি দেশাই, রাজীব গান্ধী, চন্দ্রশেখর ও নরসিংহ রাওদের সঙ্গে এসাসনে বসানো যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যাঁদের কথার সঙ্গে কাজের মিল রয়েছে। ভারতের রাজনীতিতে এমন চরিত্র বিরল।”

পেট্রল-ডিজেলের দাম, কৃষি আইন—এই সমস্ত নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই মোদী সরকারের বিরুদ্ধে সরব এই প্রবীণ বিজেপি নেতা। শুধু তাই নয়, কোভ্যাকসিন নেওয়ার কারণে যখন মমতাকে রোমে যাওয়ার অনুমতি দিচ্ছে না কেন্দ্রীয় সরকার সেই সময়েও দিদির পাশে দাঁড়িয়ে দিল্লির বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন স্বামী।

ধারাবাহিক ভাবে কংগ্রেস নেতাদের দলে সামিল করা নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে কংগ্রেস ভাঙানোর অভিযোগ উঠছিল। কিন্তু এই দিল্লি সফরে খানিকটা মমতা সেই ধারনা ভাঙলেন বলেই মনে করছেন অনেকে। কারণ গতকালই তৃণমূলে সামিল হয়েছেন নীতীশ কুমারের দল জনতা দল ইউনাইটেডের সাংসদ পবন বর্মা। জেডিইউ বিজেপির শরিকদল। এদিন দেখা করলেন স্বামী।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.