গঙ্গায় ভাসছে সারি সারি লাশ! কেন্দ্র সরকার, যোগী ও নীতিশকে নোটিস মানবাধিকার কমিশনের

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কোথাও গঙ্গানদী দিয়ে বয়ে আসছে লাশের পর লাশ, কোথাও বালিতে পোঁতা দেহ। করোনার সৌজন্যে বীভৎস এক পরিস্থিতির মুখোমুখি উত্তরপ্রদেশ। রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর হাড় জিরজিরে দশা আরও একবার স্পষ্ট এ বিপর্যয়ে। দেশের নানা প্রান্তে উঠেছে সমালোচনার ঝড়, সেই সঙ্গে ছড়িয়েছে আতঙ্কও। এবার গঙ্গায় মৃতদেহ ভেসে যাওয়া নিয়ে উত্তরপ্রদেশের যোগী আদিত্যনাথের সরকারকে নোটিস পাঠাল জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। কমিশনের তরফে নোটিস পাঠানো হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার এবং বিহার সরকারকেও।

গতকাল, বৃহস্পতিবার জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে, গঙ্গায় যে এত দেহ ভাসছে, তার মোকাবিলায় সরকার কী কী ব্যবস্থা নিয়েছে, তা আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে জানাতে বলা হয়েছে উত্তরপ্রদেশ ও নীতিশ কুমারের সরকারের মুখ্যসচিবকে। এ বিষয়ে নোটিস পাঠানো হয়েছে। পাশাপাশি মোদী সরকারের জলশক্তি মন্ত্রককেও নোটিস পাঠানো হয়েছে।

মানবাধিকার কমিশনের তরফে এদিন আরও জানানো হয়েছে, এই ঘটনায় সরকারের ব্যর্থতা স্পষ্ট হয়ে ওঠে। সাধারণ মানুষকে শিক্ষিত ও সচেতন করে তোলার দায়িত্ব মোটেই পালন করেনি তারা। পাশাপাশি নেই কোনও নজরদারিও। কোভিড হোক বা না হোক, কোনও মৃতদেহই যে দাহ না করে বা অর্ধদগ্ধ অবস্থায় নদীতে ভাসিয়ে দিতে নেই, সেই বিষয়ে মানুষকে বার্তা দেওয়া যায়নি।

ঘটনাটি প্রথম সামনে আসে ১১ মে। উত্তরপ্রদেশে গঙ্গার জলে একাধিক মৃতদেহ ভাসতে দেখা যায়। প্রায় শখানেক দেহ এভাবে ভাসতে দেখে শিউরে ওঠে গোটা দেশ। একইদিনে ফের উত্তর প্রদেশেরই গাজিপুর থেকে আরও ১২টি মৃতদেহ ভেসে আসতে দেখা যায় গঙ্গায়।

দাবি করা হয়, যে মৃতদেহগুলিকে ভাসতে দেখা গিয়েছে, সেগুলি করোনা আক্রান্তদের দেহ। দাহ করতে না পেরে ভাসিয়ে দেওয়া হয়েছে জলে। যদিও সেই অভিযোগ এখনও প্রমাণিত হয়নি।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.