সীমান্ত সংঘর্ষের জের, মিজোরাম থেকে আসা প্রতিটি গাড়িকে তল্লাশি করছে অসম পুলিশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো : মিজোরাম থেকে যে গাড়িগুলি অসমে ঢুকছে, তাতে নিষিদ্ধ মাদক থাকতে পারে। সুতরাং গাড়িগুলিকে ভাল করে পরীক্ষা করার পরেই যেন অসমে ঢুকতে দেওয়া হয়। বৃহস্পতিবার এমনই বিবৃতি দিয়েছে অসম পুলিশ। নির্দিষ্ট তথ্য দিয়ে অসম প্রশাসন জানিয়েছে, গত দু’মাসে ৯১২ বার নিষিদ্ধ মাদক ধরা পড়েছে। মাদক চোরাচালানের দায়ে গ্রেফতার হয়েছে ১৫৬০ জন।

অসমের পুলিশকর্তা জি পি সিং টুইট করে বলেছেন, মিজোরাম ও তার আশপাশে রয়েছে ড্রাগ কার্টেল। মাদকের বিরুদ্ধে অসমের অভিযান চলবে। সাধারণ মানুষের কাছে তাঁর আবেদন, পরের প্রজন্মকে বাঁচাতে মাদকবিরোধী লড়াইতে সাহায্য করুন।

জি পি সিং জানিয়েছেন, মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চালাতে গিয়ে দেখা গিয়েছে, সীমান্তের ওপার থেকে মিজোরামের পথ ধরে তা অসমে ঢোকে। তাঁর কথায়, “মিজোরামের মধ্যে দিয়ে যেভাবে অসমে মাদক ঢুকছে, তা রীতিমতো উদ্বেগের বিষয়।” এর পরে তিনি বলেন, “মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান যাতে সফল হয়, সেজন্য আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, মিজোরাম থেকে আসা প্রতিটি গাড়ি পরীক্ষা করা হবে। অসম পুলিশের কর্মীরা মিজোরাম সীমান্তে গাড়িগুলিকে তল্লাশি করবেন। যদি দেখা যায়, মাদক নেই, তবেই গাড়ি অসমে ঢুকতে দেওয়া হবে।”

মিজোরাম সরকার এখনও অসমের ওই নির্দেশের ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানায়নি। কিন্তু ওই রাজ্যের কয়েকটি নাগরিক সংগঠন টুইট করে বলেছে, মিজোরামের বাসিন্দাদের হয়রান করার চেষ্টা করছে অসম। মিজোরামের মানুষ কেবল অসমের মধ্যে দিয়েই ভারতের অন্যান্য অঞ্চলে যেতে পারেন। তাঁদের বাধা দেওয়ার জন্যই নতুন নির্দেশ জারি করেছে অসম সরকার।

বৃহস্পতিবার অসম রাজ্য প্রশাসন থেকে রাজ্যবাসীর কাছে অনুরোধ জানানো হয়, মিজোরামে যাবেন না। কারণ সেখানে তাঁদের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হতে পারে।

গত ২৬ জুলাই অসম-মিজোরাম সীমান্তে সংঘর্ষ হয়। নিহত হন অসম পুলিশের ছয় কর্মী ও এক সাধারণ মানুষ। অসম প্রশাসনের পক্ষ থেকে এক অ্যাডভাইসারিতে বলা হয়েছে, সংঘর্ষের পরে মিজো নাগরিক সমাজের কয়েকটি সংগঠন, ছাত্র ও যুব সংগঠন ক্রমাগত উস্কানিমূলক বিবৃতি দিয়ে চলেছে। অসম পুলিশের পাওয়া একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, মিজোরামে অনেক সাধারণ মানুষও অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ঘুরছে। তাদের হাতে স্বয়ংক্রিয় অস্ত্র পর্যন্ত আছে।

একইসঙ্গে অ্যাডভাইসরিতে বলা হয়েছে, যে অসমীয়ারা নানা কারণে বাধ্য হয়ে মিজোরামে আছেন, তাঁরা যেন অত্যন্ত সতর্ক হয়ে চলাফেরা করেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More