বিক্ষুব্ধ কৃষকদের উদ্দেশে ৮ পাতার চিঠি লিখলেন কৃষিমন্ত্রী, পড়ার অনুরোধ করে টুইট প্রধানমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২৩ দিন পেরিয়ে গেছে কৃষকরা আন্দোলনের। একাধিক বার আলোচনা ও বৈঠকও হয়েছে সব পক্ষের। প্রাণ চলে গেছে কিছু, জোট বেঁধেছে দেশের একটা বড় অংশের মানুষ। কিন্তু সমস্যা এখনও সে তিমিরেই। না কৃষকরা সরেছেন কৃষিবিল প্রত্যাহারের দাবি থেকে, না সরকার রাজি হয়েছে কৃষকদের দাবি মানতে। এসবের মাঝে আন্দোলনের তেজ বেড়েছে ক্রমে, জোরদার হয়েছে মানুষের সমর্থন।

এমনই পরিস্থিতিতে কৃষকদের জন্য একটি খোলা চিঠি লিখলেন কেন্দ্রীয় কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার। হিন্দিতে লেখা আট পাতার ওই দীর্ঘ চিঠিতে তিনি আবারও কৃষকদের বোঝানোর চেষ্টা করেছেন, কেন এই নতুন কৃষি আইন কৃষকদের জন্য কল্যাণকর। পাশাপাশিই তিনি দাবি করেছেন সেই একই কথা, কিছু বিরোধী কৃষক সংগঠন নয়া কৃষি আইন নিয়ে ভুল বুঝিয়ে দেশের সমস্ত কৃষকদের বিপথে চালিত করতে চাইছে।

কৃষিমন্ত্রী এই চিঠি লেখার পরে তা টুইট করে জানিয়েছেন। এর পরে সেটি রিটুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। দেশের সমস্ত কৃষক যাতে চিঠিটি পড়েন, সেই অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।

চিঠিতে কৃষিমন্ত্রী দাবি করেছেন, তিনি নিজে একটি কৃষক পরিবারে জন্মেছেন বলে কৃষি সম্পর্কে তাঁর ধারণা আছে। খরা-বন্যার মতো প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে কৃষিক্ষেত্র কতটা বিপদে পড়ে, তা তিনি জানেন। এমনকি ফসল কাটার পরে বিক্রি হতে দেরি হলে কী অসুবিধা হতে পারে, তাও তিনি অবগত। এসব জেনে এবং ভেবেই নতুন কৃষি আইন করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন কৃষিমন্ত্রী। তিনি চিঠিতে লিখেছেন, কৃষকদের লাভের কথা ভেবেই এই আইন। কেবল বিরোধী সংগঠনগুলির কারণেই কৃষকরা ভুল বুঝছেন প্রথম থেকে।

তিনি লেখেন, “দেশের কৃষিমন্ত্রী হিসেবে প্রতিটি কৃষকের ভুল ধারণা ভেঙে তাঁদের ভালর কথা ভাবা উচিত আমার। তাই আমি মনে করি, সরকার ও কৃষকদের মধ্যে বিভাজনের দেওয়াল তৈরি করার যে ষড়যন্ত্র চলছে, তা ভাঙতে হবে দ্রুত। বিরোধী মানুষরা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে নতুন আইন নিয়ে মিথ্যে প্রচার চালাচ্ছে। কৃষকদের উত্তেজিত করছে ভুল বুঝিয়ে। আপনারা গুজবে কান দেবেন না।”

অনেক দিন ধরেই প্রধানমন্ত্রী মোদী দাবি করে আসছেন, নতুন কৃষি আইন তৈরি হয়েছে কৃষকদের স্বার্থেই। কৃষকেরা বহু বছর ধরে যে কৃষি-সংস্কারের দাবি জানিয়ে এসেছেন, সেটাই কার্যকর করা হয়েছে নতুন আইনে। দীর্ঘ দিন ধরেই কৃষকরা নিজেদের উৎপাদিত দ্রব্য নিজেদের ইচ্ছে মত বিক্রির দাবি জানিয়ে আসছিল, তার সপক্ষেই রয়েছে এই বিল। সবমিলিয়ে, প্রকৃতপক্ষেই কৃষকদের কল্যাণে কাজ করছে কেন্দ্রীয় সরকার। বিরোধীদের ভুল বোঝানোর কারণেই এই আইনের প্রকৃত রূপরেখা পৌঁছচ্ছে না কৃষকদের কাছে, এমনটাই বারবার দাবি করেছেন তিনি।

সেই দাবিই আরও বিস্তারিত ভাবে চিঠিতে লিখলেন কৃষিমন্ত্রী। তবে এ চিঠি দিয়ে যে আন্দোলনের বরফ গলবে না, তা মনে করছেন অনেকেই।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More