ভারতের ইতিহাস আবার করে লেখা দরকার, ছোটদের বইয়ের ‘ভুল’ ধরল কেন্দ্রীয় প্যানেল

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বাচ্চাদের ইতিহাস (History) বইতে বদল আনার পক্ষে সওয়াল করল ন্যাশানাল বুক ট্রাস্ট। ট্রাস্টের চেয়ারম্যান গোবিন্দ প্রসাদ শর্মা জানিয়েছেন, নতুন তথ্যের উপর ভিত্তি করে ইতিহাস বইগুলি আবার করে লেখা প্রয়োজন।

পশ্চিমবঙ্গ সহ তিন সীমান্তবর্তী জেলায় বিএসএফকে বাড়তি ক্ষমতা

কী বদল আনতে বলা হয়েছে ইতিহাস বইতে? বলা হয়েছে, এযাবৎ অতীতের সমস্ত ঘটনার ভারতীয়দের ব্যর্থতাকেই তুলে ধরা হয়েছে, সাফল্যে সেভাবে আলোকপাত করা হয়নি। তবে সেটাই করা দরকার। বিদেশী আগ্রাসনের বিরুদ্ধে কীভাবে জয়ের জন্য লড়েছিলেন এদেশের রাজারা, তা সামনে আনা দরকার। যুদ্ধের ফলাফল কী হয়েছিল, দেশীয় রাজারা হেরে গিয়েছিলেন কেন, তা নিয়ে কাটাছেঁড়া কম হওয়া দরকার।

গোবিন্দ প্রসাদ শর্মা সাফ জানিয়েছেন, মহারানা প্রতাপের মতো রাজাদের যুদ্ধে যে অদম্য লড়াইয়ের মানসিকতা দেখা গিয়েছিল, প্রতিপক্ষ শক্তিশালী জেনেও যাঁরা হার মানেননি, পিছিয়ে যাননি, যুদ্ধের ময়দানে যাঁরা লড়েছেন শেষ রক্তবিন্দু পর্যন্ত, তাঁদের কাহিনিই আরও বেশি করে পড়া দরকার এদেশের ছাত্রছাত্রীদের।

স্কুলের সিলেবাস আর টেক্সট বইগুলি পুনর্বিবেচনা করে দেখার জন্য কেন্দ্রের তরফে একটি কমিটি গড়ে তোলা হয়েছিল গত ২১ সেপ্টেম্বর। মঙ্গলবার এই কমিটির প্রথম বৈঠক ছিল। তারই অন্যতম সদস্য গোবিন্দ প্রসাদ শর্মা। ভারতের ইতিহাস আবার করে লেখার নিদান দিয়েছেন তিনি।

সংবাদমাধ্যমকে গোবিন্দ প্রসাদ শর্মা জানিয়েছেন, ইতিহাসের সব বইতে কেবল এদেশের রাজাদের হারের কথাই লেখা রয়েছে। বিদেশীদের সামনে যুদ্ধে আমরা যে লড়াইয়ের মানসিকতা দেখিয়েছি তা নিয়ে আরও বেশি করে আলোচনা হওয়া দরকার।

‘ভুল’ ইতিহাসের বেশ কিছু উদাহরণও দিয়েছেন গোবিন্দ প্রসাদ শর্মা। তিনি বলেছেন, প্রচলিত ধারণা তৈরি হয়ে আছে, মুঘল সম্রাট আকবরের কাছে মহারানা প্রতাপ হেরে গিয়েছিলেন। কিন্তু সত্যিটা হল ওঁদের দুজনের লড়াইয়ের ময়দানে সামনাসামনি কখনও দেখাই হয়নি। এমনই অনেক ত্রুটি রয়েছে প্রচলিত ইতিহাসে। এই সমস্ত ভুল ভাঙার জন্য আবার করে ইতিহাস লেখা সরকার।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More