যৌনকর্মী থেকে স্টেট ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড, কেরলের নলিনীর জীবন যেন গল্পের রূপকথা

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নলিনী জামিলা। প্রথম জীবনে যৌনকর্মী ছিলেন তিনি। কিন্তু কেরলের (Kerala) ৬৯ বছর বয়সি এই বিদূষী নারী এখন জনপ্রিয় লেখিকা। তাঁর কলমের ফলা থেকে গজিয়ে ওঠে নিত্যনতুন গল্প, জমাট বুননের সেইসমস্ত লেখা প্রশ্ন ছুঁড়ে দেয় সমাজের দিকে। এবার নলিনী জামিলার প্রাপ্তির তালিকায় যুক্ত হল আরও এক নতুন পালক। কেরল ফিল্ম অ্যাওয়ার্ড পেলেন তিনি।

উত্তরাখণ্ডে এখনও আটকে ৭০ বাঙালি পর্যটক, ফিরিয়ে আনার চেষ্টায় নবান্ন

শুধু লেখালেখিই নয়, নলিনী দেবী একজন সমাজকর্মীও বটে। তিনি সমাজের নানা ক্ষেত্র নিয়ে বিশ্লেষণ করে থাকেন, কাজ করেন সকলের জন্য। সম্প্রতি কেরল স্টেট ফিল্ম অ্যাওয়ার্ডের দাবিদার হিসেবে ঘোষিত হয়েছে নলিনীর নাম। মণিলালের পরিচালনায় ‘ভারতপূজা’ ছবিতে কাজের জন্য এই পুরস্কার পাচ্ছেন তিনি। ছবিতে নলিনীই ছিলেন কস্টিউম ডিজাইনার।

এত বড় সম্মান আশা করেননি নলিনী জামিলা। তিনি জানিয়েছেন, স্টেট অ্যাওয়ার্ড সত্যিই অপ্রত্যাশিত ছিল। এই প্রথম আমি কোনও ছবিতে কস্টিউম ডিজাইন করেছি। এটা আমার জীবনের অন্যতম সেরা প্রাপ্তি। আমি খুব খুশি।

তবে বর্তমানের সাফল্যের ভিড়ে নিজের অতীতকে কখনওই ভুলে যান না নলিনী। তিনি সবসময় মনে রাখেন তিনি কী ছিলেন আর কী হয়েছেন। জোর গলায় সবসময় তাঁকে বলতে শোনা যায়, অতীতের যৌনকর্মীর জীবনের অভিজ্ঞতাই তাঁকে এই সাফল্যের কাছে পৌঁছে দিয়েছে। ভাল-মন্দ সব ধরণের অভিজ্ঞতাই তাঁকে দিন দিন আরও বেশি দৃঢ় করে তুলেছে।

যে ছবির জন্য পুরস্কৃত হচ্ছেন নলিনী, সেই ‘ভারতপূজা’ও এক নারীর কথাই বলে যে পেশায় যৌনকর্মী। নলিনী বলেছেন, এই চরিত্রের জন্য আমি যখন কস্টিউম বেছে নিচ্ছিলাম, তখন যেন নিজেকেই দেখতে পাচ্ছিলাম তার মধ্যে। আমি আমার জীবনে কখনও দামী শাড়ি গয়না পরিনি। টিপ পরতেও ভালবাসি না। ছবির চরিত্রটির মধ্যেও এই সমস্ত বিষয় ফুটিয়ে তুলেছি। নিজের মতো করে পরামর্শও দিয়েছি অভিনেত্রীকে। ‘ভারতপূজা’ ছবির কাহিনির মধ্যে নিজের যৌবনের স্মৃতিই খুঁজে পেয়েছেন নলিনী জামিলা।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.