হাড়হিম করা লড়াইয়ে চিতাবাঘকে হারিয়ে দিলেন প্রৌঢ়া, ডুয়ার্সের চা বাগানে আলোড়ন

হাতে ছিল কাটারি। তা দিয়েই লড়াই শুরু করেন তিনি। এরপরেই রণে ভঙ্গ দেয় চিতাবাঘটি। ওই প্রৌঢ়ার চিৎকার শুনে ছুটে আসেন আশেপাশে থাকা চা শ্রমিকরা। তাঁরাই ওই অবসরপ্রাপ্ত চা শ্রমিককে ভর্তি করেন মাল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে।

1

দ্য ওয়াল ব্যুরো, জলপাইগুড়ি: ফের বিশালাকার এক চিতাবাঘের সঙ্গে হাড়হিম করা লড়াই প্রৌঢ়া এক অবসরপ্রাপ্ত  চা শ্রমিকের। শেষমেশ জঙ্গলে পিছু হটল চিতাবাঘ। গুরুতর জখম ওই প্রৌঢ়ার চিকিৎসা চলছে মাল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মাল থানার নিউগ্ল্যানকো চা বাগানের ভেতরে ঢুকে ঝুরনি করা চা গাছের ডাল জোগাড় করছিলেন অবসরপ্রাপ্ত চা শ্রমিক রেশমা খেশ (৫৫)। বাড়িতে জ্বালানির জন্য এই শুকনো চা গাছের ডাল সংগ্রহ করেন অনেকেই। এই সময় রেশমার উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে বিশালকার এক চিতাবাঘ। থাবা বসিয়ে দেয় তাঁর মাথা ও হাতে। সাময়িকভাবে ঘাবড়ে গেলেও অচিরেই সর্বশক্তি দিয়ে প্রতিরোধ করেন তিনি।

হাতে ছিল কাটারি। তা দিয়েই লড়াই শুরু করেন তিনি। এরপরেই রণে ভঙ্গ দেয় চিতাবাঘটি। ওই প্রৌঢ়ার চিৎকার শুনে ছুটে আসেন আশেপাশে থাকা চা শ্রমিকরা। তাঁরাই ওই অবসরপ্রাপ্ত চা শ্রমিককে ভর্তি করেন মাল সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে।

গরুমারা ওয়াইল্ড লাইফ ডিভিশনের ডিএফও নিশা গোস্বামী জানান, চিতাবাঘের আক্রমণে জখম হয়েছেন ওই প্রৌঢ়া। তাঁর চিকিৎসার সমস্ত খরচ দেবে বন দফতর। চিতাবাঘটির খোঁজ চালানো হচ্ছে।

ঠিক একমাস আগে জানুয়ারি মাসের ১২ তারিখ এভাবেই এক চিতাবাঘকে রুখে দিয়ে নিজের জীবন ছিনিয়ে এনেছিলেন আলিপুরদুয়ারের ভাতখাওয়া বাগানের শ্রমিক লীলা ওঁরাও। সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ ভাতখাওয়া চাবাগানের ১৫ নম্বর সেকশনে ঝুরনির কাজ করছিলেন ৪৫ ছুঁইছুঁই লীলা। সেই কাজ করার সময় আচমকাই পেছন থেকে লীলার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে একটি স্ত্রী চিতাবাঘ। ভয় পেলেও হাল ছাড়েননি লীলা।

চিতাবাঘটি তাঁর উপর ঝাঁপিয়ে পড়তেই পাল্টা আক্রমণ শানান লীলা। হাতে থাকা দা দিয়ে চিতাকে এলোপাথারি মারতে থাকেন। বেগতিক বুঝে লীলাকে ছেড়ে দিয়ে প্রাণ ভয়ে ছুটে পালায় চিতাবাঘটি। প্রাণে বেঁচে যান লীলা। জখম এই চা শ্রমিককে সঙ্গে সঙ্গে কালচিনির লতাবাড়ি গ্রামীন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে লতাবাড়ি গ্রামীণ হাসপাতাল থেকে তাঁকে চা বাগানের হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। এখন ভাল আছেন তিনি।

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.