নিশীথ বাংলাদেশি? কংগ্রেস সাংসদের বিস্ফোরক চিঠি নিয়ে ময়দানে তৃণমূল, পাল্টা বিজেপি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সদ্য নরেন্দ্র মোদী মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন তিনি। স্বরাষ্ট্র দফতরের প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিককে। সেইসঙ্গে যুবকল্যাণের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্বও পেয়েছেন তরুণ সাংসদ। কিন্তু তাঁর ভারতের নাগরিকত্ব নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন তুলে দিলেন অসম থেকে নির্বাচিত রাজ্যসভায় কংগ্রেস সাংসদ রিপুন বোরা।

তিনি চিঠি লিখেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। সেই চিঠি হাতিয়ার করে ময়দানে নেমেছে তৃণমূলও। অসম, ত্রিপুরার দুটি আঞ্চলিক সংবাদমাধ্যম এবং দুটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের নাম উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রীকে লেখা চিঠিতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন।

ওই চিঠিতে সংবাদমাধ্যকে উদ্ধৃত করে লিখেছেন, “নিশীথ আসলে বাংলাদেশের পলাশবাড়ির হরিনাথপুরের বাসিন্দা। ভারতে কম্পিউটার কোর্স করার নামে আসার পরে কোচবিহারে থেকে যান। প্রথমে তৃণমূলে এবং পরে বিজেপি-তে যোগ দিয়ে সাংসদ হন।”

রাজ্যসভায় কংগ্রেস সাংসদ টুইটে এও লিখেছেন, “একজন বিদেশি নাগরিক কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, বিষয়টি গভীর উদ্বেগের। তদন্ত করে বিষয়টি স্পষ্ট করতে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছি।’

কংগ্রেস সাংসদের এই চিঠি পেয়ে ময়দানে নেমেছে তৃণমূল। শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু লিখেছেন, “রাজ্যসভার সাংসদ রিপুণ বোরা সঠিক প্রশ্ন তুলেছেন। বহু মিডিয়ায় নিশীথ প্রামাণিক বাংলাদেশের নাগরিক বলে উল্লেখ রয়েছে। এই ধরনের লোককে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী করার আগে কি কোনও কিছুই খতিয়ে দেখা হয়নি? ভুলে গেলে চলবে না এই নিশীথের বিরুদ্ধে কতগুলি গুরুতর অপরাধমূলক মামলা চলছে। লজ্জাজনক।’ রাজ্যের মন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেন লিখেছেন, পরিস্থিতি খুবই উদ্বেগজনক।

পাল্টা বিজেপি মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, “রাজ্যের দু’জন দায়িত্বশীল মন্ত্রী প্রশ্ন তুলেছেন। দয়া করে তাঁরা তথ্য প্রমাণ দিন। শুধু শুধু কুৎসা করে শুধুই খবরে আসা যায়।’’

উনিশের লোকসভা ভোটে তৃণমূলের হয়ে প্রচার করার জন্য দুই বাংলাদেশি অভিনেতাকে দেশ থেকে বিতাড়িত করা হয়েছিল। ভারতে ভিসার ক্ষেত্রেও দুজনকে ফিরদৌস এবং রানি রাসমণি মেগা সিরিয়ালের অন্যতম অভিনেতাকে দ্রুত দেশ ছাড়তে হয়েছিল। এবার অভিযোগ খোদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More