ভাসতে পারে ভবানীপুর, এনডিআরএফ-কে প্রস্তুত রাখতে বলল নবান্ন

রফিকুল জামাদার

হাওয়া অফিস ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছে, শনিবার থেকে আরও একটি নিম্নচাপ (Depression) ঘনীভূত হতে চলেছে বঙ্গোপসাগরে। যে কারণে ফের দক্ষিণ বাংলার বিস্তীর্ণ এলাকায় টানা ভারী বৃষ্টিপাতের (Rain) সম্ভাবনা রয়েছে। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ভবানীপুরের উপনির্বাচন (Bhawanipur Bypoll) সহ সামশেরগঞ্জ ও জঙ্গিপুরের বিধানসভা ভোট। সে ব্যাপারেও প্রশাসনকে সতর্ক থাকতে বলেছে নবান্ন। তবে সূত্রের খবর, ভবানীপুরের জন্য জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দলকে প্রস্তুত রাখার ব্যাপারে বুধবারই বার্তা দিয়েছে রাজ্য সরকার।

এমনিতেই কলকাতার বিস্তীর্ণ এলাকা এখনও জলমগ্ন। ভবানীপুর কেন্দ্রেও একাধিক ওয়ার্ডে দল থৈ থৈ অবস্থা। এই পরিস্থিতিতে আগামী ৩০ তারিখের ভোট নিয়ে উদ্বিগ্ন নবান্ন।

হাওয়া অফিস যে পূর্বাভাস দিয়েছে তাতে শনিবার থেকে শুরু হতে চলা বৃষ্টি প্রায় এক সপ্তাহ চলতে পারে। বৃষ্টি কমে যাওয়ার পরেও কলকাতার জলচিত্র ভয়াবহ। তারপর যদি নাগাড়ে বৃষ্টি চলে কী হবে বোঝাই যাচ্ছে। এ ব্যাপারে চ্যালেঞ্জের মুখে কলকাতা পুরসভাও।

ভবানীপুরের তৃণমূল প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মঙ্গলবার তাঁর প্রচার কর্মসূচি ছিল একবালপুরে। কিন্তু জলের জন্য তা হয়নি। বুধবার পরিবর্তিত সূচি ঠিক হয়েছিল। তবে এদিন দুপুর থেকে যে বৃষ্টি শুরু হয়েছে তার ফলে আজও তা করা যাবে কি না সন্দেহ।

ইতিমধ্যেই বর্ষা শেষের বৃষ্টি নিয়ে জেলাগুলিকে সতর্ক করেছে নবান্ন। বুধবার জেলাশাসক ও বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের আধিকারিকদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সও করেছেন রাজ্যের মুখ্য সচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। সব মিলিয়ে সেপ্টেম্বরের শেষের এই বৃষ্টিতে কপালে ভাঁজ নবান্নের। বাড়তি উদ্বেগ ভোট নিয়ে।
অনেকের মতে, এনডিআরএফ-কে তখনই প্রস্তুত রাখার কথা বলা হয় যখন প্রশাসন আশঙ্কা করে তেমন বড় ধরনের বিপর্যয় ঘটলেও ঘটতে পারে। এক্ষেত্রে ভবানীপুরের ক্ষেত্রে তেমনই আশঙ্কা করছে প্রশাসন।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More