অভিষেক ভাষণ দিলেন মাত্র পাঁচ মিনিট, কৌশলী সিদ্ধান্ত তৃণমূল সাধারণ সম্পাদকের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নয়া অবতারে এবার একুশে জুলাইয়ের মঞ্চে ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। সাংগঠনিক রদবদলে তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পর এই প্রথম বড় কোনও কর্মসূচি ছিল। কিন্তু প্রতি বছর একুশে জুলাইয়ের মঞ্চে দীর্ঘ বক্তৃতা করলেও এবার পাঁচ মিনিটেই ভাষণ শেষ করলেন তরুণ নেতা।

অভিষেক অতীতেও একুশের সমাবেশে ভাষণ দিয়েছেন। সেগুলি এদিনের মত সংক্ষিপ্ত ছিল না। এদিন সময় নিয়ে সমস্যা ছিল না। সমর্থকদের বাড়ি ফেরার তাড়া ছিল না। তাহলে দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কেন মাত্র পাঁচ মিনিট ভাষণ দিলেন? কেনই বা রাজনীতির জোরালো কথায় তেমন ঢুকলেন না? রাজনৈতিক মহলে এ নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে।
একাংশের মতে, তৃণমূলের সর্ব ভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের এই সিদ্ধান্ত পুরোপুরি কৌশলী পদক্ষেপ। কৌশলেই ছোট্ট বক্তৃতা দিয়েছেন অভিষেক। যার মোদ্দা কথা ছিল, বিজেপির মতো স্বৈরাচারী শক্তির পতন ঘটাতে সমস্ত অ-বিজেপি দলকে হাতে হাত মেলাতে হবে। আর সেই লড়াইয়ে পথ দেখাবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কোন কৌশলে ছোট বক্তৃতা?

রাজনৈতিক মহলের অনেকের মতে, এবারের একুশে জুলাইকে চব্বিশের লোকসভার রিহার্সাল স্টেজ হিসেবেই তুলে ধরতে চেয়েছিল তৃণমূল। সর্বভারতীয় আঙ্গিক দেওয়া হয়েছিল মমতার ভার্চুয়াল সভার। সেই সভায় মমতা দীর্ঘ বক্তৃতা করেছেন। সেই কারণেই আর অভিষেক কথা বাড়াননি। যাতে জাতীয় রাজনীতির ফোকাস থাকে মমতার উপরেই।

তা ছাড়া, দিল্লিতে পি চিদম্বরম, দিগ্বিজয় সিং, শরদ পাওয়ারের মতো বর্ষীয়ান সব নেতারা উপস্থিত ছিলেন ভার্চুয়াল বক্তৃতা শুনতে। অন্য অ-বিজেপি দলের এই প্রাজ্ঞ রাজনীতিকরা বসে অভিষেকের বক্তৃতা শুনবেন, সেটাও কিছুটা অস্বস্তিকর। যতই তিনি একুশের ভোটে বাংলায় পরীক্ষিত নেতা হয়ে উঠুন জাতীয় রাজনীতিতে এখনও তাঁর কোনও ছাপ নেই। ফলে পাওয়ার, চিদম্বরমরাই বা বসে অভিষেকের বক্তৃতা শুনবেন কেন। অনেকের মতে, অভিষেক দীর্ঘ বক্তৃতা করলে যদি অন্য অ-বিজেপি নেতারা উঠে যেতেন তাহলে সেটাও তৃণমূলের পক্ষে খুব একটা ভাল হত না।
এদিন একুশের সভার সূচনা করেন তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সি। তিনিও মিনিট পাঁচেকের বক্তৃতাতেই ১৯৯৩-এর সেই আন্দোলনের তাৎপর্য ব্যাখ্যা করেই থেমে যান। তারপর মাইক হাতে নেন মমতা।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More