শীতলকুচি কাণ্ডে সিট গড়ল সিআইডি, তলব মাথাভাঙা থানার তদন্তকারী অফিসারকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শীতলকুচিতে ভোটের দিন কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে চার জনের মৃত্যুর ঘটনা তোলপাড় ফেলে দিয়েছিল বাংলায়। সেই সময়েই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন, ক্ষমতায় ফিরেই এ নিয়ে তদন্ত করবেন তিনি। বুধবার তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন মমতা। বৃহস্পতিবার পদক্ষেপ শুরু করে দিল সিআইডি।
চার সদস্যের বিশেষ তদন্তকারী দল তথা সিট গঠন করেছে রাজ্য তদন্ত সংস্থা। এর নেতৃত্বে রয়েছেন, ডিআইজি সিআইডি কল্যাণ মুখোপাধ্যায়।

শীতলকুচির ঘটনা নিয়ে গঠিত সিট-ই ভবানী ভবনে তলব করেছে মাথাভাঙা থানার এসআই তথা এই ঘটনার তদন্তকারী অফিসারকে। ওইদিন কী ঘটেছিল ১২৬ নম্বর বুথে সে ব্যাপারে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করবেন সিআইডি-র গোয়েন্দারা।

কেন্দ্রীয়বাহিনীর গুলিতে শীতলকুচিতে চার জনের মৃত্যু নিয়ে কমিশন বলে, দুষ্কৃতীরা জওয়ানদের রাইফেল ছিনিয়ে নিতে গেছিল। তখন আত্মরক্ষার্থেই গুলি চালায় আধাসেনা। তারপর শীতলকুচির ঘটনার একাধিক ভিডিও ফুটেজও প্রকাশ্যে আসে।

ওই ঘটনার পর শীতলকুচিতে সমস্ত রাজনৈতিক দলের প্রবেশ নিষিদ্ধ করে কমিশন। একদিন পর সেখানে যান মমতা। নির্বাচনের প্রচার পর্বে এ নিয়ে একে অন্যের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়েছিল তৃণমূল-বিজেপি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এসে বলেছিলেন, মমতার উস্কানিতেই এই ঘটনা ঘটেছে। তিনিই জনসভা করে দলীয় কর্মীর ট্রেনিং দিয়েছিলেন কী ভাবে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে পেটানো যায়। পাল্টা মমতা বলেছিলেন, কোচবিহারের এসপির নির্দেশে এই ঘটনা ঘটেছে। গতকালই কোচবিহারের পুলিশ সুপার বদল করেন মুখ্যমন্ত্রী। দেবাশিস ধরের জায়গায় ওই জেলার পুলিশ সুপার করা হয়েছে কে কান্নানকে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More