ময়নাগুড়িতে প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্নায় যুবক! বিয়ে না করে যাবেন না কিছুতেই

দ্য ওয়াল ব্যুরো: প্রেমিকাকে বিয়ে করবেনই। মেয়েকে না নিয়ে কোথাও যাবেন না এই যুবক। এমনটা পণ করেই প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্ণায় বসলেন প্রেমিক। ওদিকে প্রেমিকা জানালেন তাঁর এই বিয়েতে আগ্রহ নেই। শনিবার বিকেলে ময়নাগুড়ির হেলাপাকরিতে সে এক হুলস্থুল কাণ্ড! পরিস্থিতি এমনই হয়ে দাঁড়ায়, সামাল দিতে নামানো হয় পুলিশ ও র‍্যাফ।

প্রেমিক অবশ্য হাল ছাড়ার পাত্রই নন। হাতাহাতি এবং সংঘর্ষের জেরে রাত গড়িয়ে সকাল হয়ে গেলেও মীমাংসা হয়নি। গোটা রাত ধরে নাটকীয় পট পরিবর্তনের সাক্ষী হতে লোকে লোকারণ্য হয়ে পড়ে এলাকা।

স্থানীয় সূত্রের খবর, ময়নাগুড়ি ব্লকের হেলাপাকরি পাইলার বাড়ির এক যুবতীর সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক ছিল নাউয়াপাড়ার মিঠুন রায়ের। তবে এখনই বিয়ে করতে রাজি নন প্রেমিকা সুস্মিতা রায়। বিয়ে করতে জোর করায় ইতিমধ্যেই প্রেমিকের সঙ্গে যোগাযোগ বিছিন্ন করে ফেলেন তিনি। তার পরই শনিবার বিকেল থেকে প্রেমিকার বাড়ির সামনে ধর্নায় বসেন মিঠুন নামের ওই যুবক।

ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। সুস্মিতার পরিবারের সদস্যরা মিঠুনকে বাড়ি ফিরে যেতে বলেন। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যদের উপস্থিতিতে সালিশি সভাও ডাকা হয়। কিন্তু তাতেও চিঁড়ে ভেজেনি। শেষে পঞ্চায়েত সদস্যদের নির্দেশে বাধ্য হয়ে বাড়ি ফিরে গেলেও কিছুক্ষণ পরই স্থানীয় বাসিন্দাদের পরামর্শে ফের এসে ধর্নায় বসেন মিঠুন। স্থানীয় একদল চান মিঠুনের সঙ্গেই বিয়ে হোক সুস্মিতার। তাঁরাই ধর্নার জন্য উৎসাহ দেন মিঠুনকে।

এই পরিস্থিতিতে সুস্মিতার বাড়ির লোক ফের সবাইকে জোর করে উঠিয়ে দিতে গেলে শুরু হয় বাকবিতণ্ডা। পড়শিরাও জড়িয়ে পড়েন। শেষে দু’পক্ষের ধস্তাধস্তি আরম্ভ হয়, ক্রমেই বড় আকার ধারণ করে সেই বিবাদ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ময়নাগুড়ি থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ছুটে আসে। জানা যায়, পুলিশ মিঠুনকে ধর্না থেকে উঠে যেতে বললেও উৎসাহী স্থানীয় বাসিন্দারা ফের বাধা দেন। শুরু হয় আবার উত্তেজনা। এদিন পুলিশকে ঘিরে সাধারণ মানুষ বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।

আরও এক পুলিশবাহিনী পৌঁছে সাধারণ মানুষকে ছত্রভঙ্গ করে দেওয়ার চেষ্টা করলেও কিছুক্ষণের মধ্যে আবারও সাধারণ মানুষ একত্রিত হয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। পাছে পরিস্থিতি ফের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায় তাই র‍্যাফের বিশাল বাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন ডিএসপি। জানা গেছে, তিনি এসে নিজে দু’পক্ষের মিটমাট করার চেষ্টা চালাচ্ছেন এখনও।

প্রেমিক মিঠুন এখনও অনড়। সুস্মিতাকে না বিয়ে করে তিনি যাবেন না। ওদিকে প্রেমিকা সুস্মিতা রায় যে শুধু বিয়ে করতে রাজি নন তাই নয়, তাঁর দাবি, তাঁর সঙ্গে মিঠুনের আর নাকি সম্পর্কই নেই। তাই তিনি বাধ্য মেয়ের মত জানিয়েছেন, তাঁকে বাড়ি থেকে যেখানে বিয়ে দেওয়া হবে সেখানেই বিয়ে করবেন।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More