ভাইয়ের বায়োপিকে ‘না’, ওর ‘নিষ্পাপ’ মুখ কে ফুটিয়ে তুলবে, সুশান্তের বোনের প্রশ্ন

0

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অকালপ্রয়াত বলিউড অভিনতা সুশান্ত সিং রাজপুতের (sushant singh rajput) ওপর বায়োপিক (biopic) তৈরির কথা শোনা যাচ্ছে অনেকদিন ধরে। তবে সুশান্তের বোন (sister) প্রিয়ঙ্কা সিং (priyanka singh)  ভাইয়ের সঙ্গে পুরানো ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে লিখেছেন, অন্ততঃ ন্যয়বিচার না হওয়া পর্যন্ত এসএসআরকে নিয়ে কোনও ছবি তৈরি করা উচিত নয়। এটা আমার ভাই, শিল্পী, জিনিয়াস সুশান্তসিংরাজপুতের কাছে আমার অঙ্গীকার। আর তারপর এসএসআরের হ্যান্ডসাম, নিষ্পাপ, সজীব ব্যক্তিত্ব স্ক্রিনে ফুটিয়ে তোলার ক্ষমতা কার আছে! আমি অবাক হয়ে ভাবি। তৃতীয়তঃ এটা প্রত্যাশা করাই বিভ্রম হবে যে, এই নিরাপত্তাহীন ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে কারও সাহস ও আন্তরিকতা থাকবে যে, তিনি এসএসআরের স্বতন্ত্র, ব্যতিক্রমী  কাহিনিকে সততা, দায়বদ্ধতা নিয়ে ফুটিয়ে তুলবেন, যে নিজের হৃদয়ের ডাক শুনে চলত সবসময়, সবচেয়ে প্রভাবশালী, দাপুটে প্রোডাকশন হাউসকেও নিজের শর্তে চালিয়েছেন। শেষ কথা হল, আমার ভাই চেয়েছিল,  কখনও যদি বা হয়ও নিজের বায়োপিক নিজেই করবে। আর এখন কৃত্রিম মেধা প্রযুক্তির  সাহায্যে নিকট ভবিষ্যতে এটা না করতে পারার তো কোনও কারণ নেই। #justiceforsushantsinghrajput#sushantmonth  হ্যাশট্যাগ দিয়েছেন প্রিয়ঙ্কা।

 

View this post on Instagram

 

A post shared by Priyanka Singh (@psthegoner)

ট্যুইটারে একই পোস্ট দেখে প্রিয়ঙ্কাকে সুশান্তের কয়েকজন অনুগামী প্রশ্ন করেন, এসএসআর মৃত্যু রহস্য মামলায় সিবিআই তদন্তের হাল জানতে সবার আগে কেন আপনি সুপ্রিম কোর্ট যাচ্ছেন না? আটকাচ্ছে  কোথায়? আপনি তো পরিবারের লোক, আর  কেউ না হোক. আপনার তো অতি অবশ্যই সুপ্রিম কোর্ট যাওয়া উচিত।

এক ফ্যান লেখেন, ক্লাইম্যাক্স ছাড়া কাহিনি অসম্পূর্ণ থেকে যায়। প্রকৃত অপরাধীরা ধরা না পড়া পর্যন্ত সুশান্তের কাহিনি অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। ক্লাইম্য়াক্স আসুক না, আমরা তো সেজন্যই অপেক্ষায় রয়েছি। একমাত্র তবেই তো ওঁকে নিয়ে ছবি করে লাভ। সঙ্গে হ্যাশট্যাগ #JusticeForSushantSinghRajput.

আরেকজন লেখেন, আমরা সবসময় আপনার সঙ্গে আছি। কিন্তু  সুপ্রিম কোর্টে গিয়ে সিবিআইয়ের থেকে আপডেট চাওয়ার অভ্যাস করুন!  আমরা কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়েছি, সুশান্তের জন্মদিনে তাদের ই মেল পাঠানোর কথাও ভাবছি। কিন্তু এই যুদ্ধে জয়ী হতে সর্বাত্মক লড়াই চাই।

২০২০র ১৪ জুন মুম্বইয়ের অ্যাপার্টমেন্টে সুশান্তকে মৃত উদ্ধার করা হয়। মুম্বই পুলিশের দাবি, এটা আত্মহত্যা। তবে মামলার ভার পরে সিবিআইয়ের হাতে দেওয়া হয় প্রবল জনমতের চাপে।  সুশান্তের পরিবার আঙুল তুলেছিল তাঁর সেই সময়ের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর দিকে। সুশান্ত তখন রিয়ার সঙ্গে ডেট করছিলেন। রিয়া সুশান্তকে আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার পাশাপাশি তাঁর টাকাপয়সা নয়ছয় করেছেন বলে অভিযোগ তোলে প্রয়াত সুশান্তের পরিবার।

 

You might also like
Leave A Reply

Your email address will not be published.