না চাইতেই হু হু করে বাড়ছে ওজন? জানুন কী পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রোগা হতে কে না চায়! কিন্তু চাইলেই কি আর মনের মতো ফিগার পাওয়া যায়! না চাইতেও ওজন (Weight) বাড়তে থাকা অনেকেরই বড় সমস্যা। কত না ডায়েট, কত না কসরত করতে হয় ওজন কমানোর জন্য। কিন্তু না, বরং তড়তড়িয়ে ওজনের মিটার বেড়েই চলে।

বাচ্চাদের পুষ্টি যথাযথ হচ্ছে তো? সঠিক ডায়েট প্ল্যান দরকার ছোট থেকেই

এই সমস্যা কিন্তু গুরুতর। অনেকেই ওজন কমানোর জন্য ডায়েট করার চক্করে খাওয়া-দাওয়া প্রায় ছেড়েই দেন। তবু কাজের কাজ কিছুই হয় না। উল্টে ঠিকমতো না খাওয়ার জন্য শরীর আরও বেশি খারাপ করে। নিজে থেকে ওজন কমানোর জন্য খাওয়া কমিয়ে দেওয়া একদমই উচিত নয়। বরং আগে জানতে হবে, কেন ওজন বাড়ছে?রইল ওজন বেড়ে যাওয়ার তেমন কিছু খুব সাধারণ কারণ আর তার সহজ সমাধান।

ক্লান্তি

অতিরিক্ত কাজের চাপ, ক্লান্তি ওজন বাড়িয়ে দেয়। আমাদের শরীরে এমন অনেক হরমোন আছে যেগুলো ক্লান্তির দ্বারা প্রভাবিত হয়। প্রচুর খাটাখাটনির ফলে এই সমস্ত হরমোনের ক্ষরণ বেশি হতে থাকে। এতে বেশি করে খিদে পায়। এভাবেই স্বাভাবিকের তুলনায় বেশি খাওয়া হয়ে যায়, আর ওজন বাড়তে থাকে।

কাজের চাপ কমাতে পারলে ভাল। কিন্তু তা না হলে মেডিটেশনের সাহায্য নিতে হবে। যোগা, বিভিন্ন ব্যায়াম বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে নিয়মিত করলেই ওজন বেড়ে যাওয়ার সমস্যা মিটবে।

অনিদ্রা

ঘুমের অভ্যাস শরীরের বিভিন্ন সিস্টেমের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। আর অবশ্যই তা ওজনকেও প্রভাবিত করতে পারে নানাভাবে। নিউট্রিশনিস্টরা বলছেন, ঘুম না হলে অনেক সময়েই ওজন বেড়ে যায় অস্বাভাবিক হারে। এতে শরীরে ক্যালোরির পরিমাণ বাড়ে।

ঘুমের সমস্যা মেটাতে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে রাতের খাবারের দিকে। রাতে হালকা খাবার খাওয়া দরকার। ঘুমের উপযুক্ত শান্ত পরিবেশ তৈরি রাখতে হবে। আর সঙ্গে ব্যায়াম, যোগা তো আছেই।

মেয়েদের পিকস (PCOS) আর মেনোপজ (Menopause)

মেয়েদের প্রজননের বছর গুলোতে পিকস নানা সমস্যা সৃষ্টি করে। এতে হরমোনের গোলমাল হয়, অনেকক্ষেত্রেই তা থেকে ওজন বেড়ে যেতে পারে। পিকস নিয়ন্ত্রণের জন্য নিয়মিত ব্যায়াম করা দরকার। এছাড়া মেনোপজের সময়েও ওজন বাড়ার প্রবণতা তৈরি হতে পারে।

প্রচুর খাওয়াদাওয়া

খাওয়াদাওয়া নিয়ন্ত্রণ না করতে পারলে ওজন কমার আশা নেই। যখন তখন যা খুশি খাওয়া, প্রচুর তেলমশলা খেয়ে ফেলা কেবল লোভের বশে, এতে ওজন বাড়বেই। খাওয়াদাওয়ার দিকে তাই নজর রাখতে হবে। এতে শুধু ওজন বাড়বে না, শরীরে আরও নানা সমস্যা দেখা দিকে পারে।

আন্ডার‍্যাকটিভ থাইরয়েড

হাইপোথাইরয়েড বা আন্ডার‍্যাকটিভ থাইরয়েড হল এমন এক অবস্থা যার ফলে থাইরয়েড গ্রন্থি থেকে প্রয়োজনীয় থাইরয়েড হরমোন বেরোতে বাধা পায়। ওজন আচমকা বেড়ে যাওয়া এই হাইপোথাইরয়েডের একটি লক্ষণ। ওজন বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যদি ক্লান্তি, খসখসে চামড়া, দুর্বল শরীর, কনস্টিপিটেশনের মতো লক্ষণ দেখা দেয় তবে হাইপোথাইরয়েডের পরীক্ষা করা দরকার। এমন হলে ডায়েটেও বদল আনতে হবে বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More