স্থানীয় ঠিকানার নথি থাক বা না থাক, কোভিড রোগীকে ফেরাতে পারবে না হাসপাতাল: সুপ্রিম কোর্ট

দ্য ওয়াল ব্যুরো: স্থানীয় বাসিন্দা না হলে বা স্থানীয় বাসিন্দা হওয়ার পরিচয়পত্র না থাকলে সেই রোগীকে ভর্তি নেওয়া হচ্ছে না বলে একাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে সুপ্রিম কোর্টের কাছে। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতে এবার কড়া নির্দেশিকা জারি করল সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের বেঞ্চ জানিয়ে দিয়েছে, রোগী যদি স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা নাও হন, পরিচয়পত্র নাও থাকে, তবু কোনও হাসপাতাল সেই রোগী ফেরাতে পারবে না।

জানা গেছে, এই মর্মে সব রাজ্যকে কড়া নোটিস দেওয়া হয়েছে। এও বলা হয়েছে, কোভিড রোগীর হাসপাতালে ভর্তির বিষয়ে একটা খসড়া পলিসি তৈরি করতে হবে আগামী দু’সপ্তাহের ভিতর। রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করানোর পূর্ণাঙ্গ নির্দেশিকা থাকবে তাতে, তা মেনে চলতে হবে প্রতিটা রাজ্যকে।

শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, দেশজুড়ে চলা করোনা পরিস্থিতিতে হাসপাতালগুলির ভূমিকা নিয়ে ক্ষুব্ধ আদালত। কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারগুলি সমন্বয় সাধন করে কাজ করুক। হাসপাতালগুলিতে বেড ও অক্সিজেনের জোগান পর্যাপ্ত হোক।

ইতিমধ্যে গতকালই দেশের অক্সিজেন সংকট নিয়ে বিশেষ পদক্ষেপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। টুইট করে মোদী বলেছেন, “অক্সিজেনের উৎপাদন বাড়াতে নাইট্রোজেন প্ল্যান্টগুলিতে অক্সিজেন তৈরি করার কাজ চলছে। সঙ্কটের পরিস্থিতিতে আপাতত শিল্প কারখানাগুলিতে নাইট্রোজেনের সরবরাহ কমিয়ে প্ল্যান্টগুলিকে অক্সিজেন তৈরি করতে বলা হয়েছে। কয়েকটি নাইট্রোজেন প্ল্যান্টকে চিহ্নিত করে পরিকাঠামো বদলের কাজ চলছে।”

কোভিড পরিস্থিতি নিয়ে রবিবার জরুরি বৈঠক ডেকেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যসচিব, প্রধানমন্ত্রীর দফতরের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি, ক্যাবিনেট সচিব সহ অনেকেই হাজির ছিলেন সেই বৈঠকে। অক্সিজেন, প্রতিষেধক, ওষুধ, হাসপাতালের পরিকাঠামো ইত্যাদি নিয়ে বিশদে আলোচনা হয় বৈঠকে।

সূত্রের খবর, ১৪টি শিল্প কারখানাকে বেছে নেওয়া হয়েছে যেখানে অক্সিজেনের উৎপাদন হতে পারে। ৩৭টি নাইট্রোজেন প্ল্যান্টকেও চিহ্নিত করা হয়েছে। পিএসএ (প্রেসার সুইং অ্যাবসর্পশন) নাইট্রোজেন প্ল্যান্টগুলিকে অক্সিজেন প্ল্যান্টে পদলে দেওয়ার কাজ কতদূর এগোল সে নিয়ে বিশদে জানতে চান প্রধানমন্ত্রী। নাইট্রোজেন প্ল্যান্টে কার্বন আণবিক চালুনী (সিএমএস) দরকার হয়, অন্যদিকে অক্সিজেন তৈরি করতে হলে জিয়োলাইট আণবিক চালুনী (জেডএমএস) দরকার। নাইট্রোজেন প্ল্যান্টগুলিতে তাই অক্সিজেন উৎপাদন করতে হলে পরিকাঠামোর কিছু বদল দরকার। সেই সঙ্গে অক্সিজেন অ্যানালাইজার, কন্ট্রোল প্যানেল, ফ্লো ভালভ সহ আনুষঙ্গিক আরও কিছু যন্ত্রপাতিরও দরকার। সেসব বসানোরও কাজ চলছে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More