‘আমার পঞ্চায়েত ভোটেও এত লোক মারা যায়নি’,গুলি-কাণ্ডে অমিত শাহর চক্রান্ত দেখছেন মমতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে চার জনের মৃত্যুর ঘটনায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহর চক্রান্ত দেখছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন ওই ঘটনার পর জনসভাতেই প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে তিনি বলেন, “আমার পঞ্চায়েত ভোটেও এত লোক মারা যায়নি। ভোটের লাইনে দাঁড়ানো পাঁচজনকে গুলি করে মেরেছে দিল্লির পুলিশ। আমার ৫টা ভাইকে মেরে দিয়ে বলছে, আমি কালই মাথাভাঙায় যাব”। পরে শিলিগুড়িতে সাংবাদিক বৈঠক করে তিনি বলেন, যে ভাবে বাংলায় ভোট করানো হচ্ছে তা গণতন্ত্রের জন্য লজ্জার। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহই এই ঘটনার চক্রান্তকারী। তাঁর পদত্যাগ করা উচিত।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর পদ থেকে অমিত শাহর ইস্তফা চেয়ে রবিবার রাজ্যের ব্লকে ব্লকে তৃণমূল প্রতিবাদ মিছিল করবে বলেও জানিয়েছেন মমতা। তাঁর এও অভিযোগ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলায় এসে মিথ্যা কথা বলছেন। তাঁর কোনও সংবেদনশীলতা নেই। তা যদি থাকত তা হলে শীতলকুচিতে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে যাঁদের মৃত্যু হয়েছে, তাঁদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যেতেন তিনি।

আরও পড়়ুন: কী ঘটেছিল শীতলকুচিতে?

আরও পড়ুন: শীতলকুচির ঘটনা নিয়ে বিশেষ পুলিশ পর্যবেক্ষকের রিপোর্ট কী?

এর আগে শীতলকুচিতে গুলি চালনার ঘটনা নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দায়ী করেছেন প্রধানমন্ত্রী। শিলিগুড়িতে সভা ছিল প্রধানমন্ত্রীর। সেখানে তিনি বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও করার জন্য উস্কানি দিয়েছেন। সেই প্ররোচনার কারণেই এই দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে। শুধু মোদী নয়, শীতলকুচির ঘটনার পর থেকেই বিভিন্ন মহল থেকে এই অভিযোগ উঠছে। কারণ, সম্প্রতি পর পর কয়েকটি জনসভায় মমতা কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও করার কথা বলেছিলেন। অনেকে মনে করছেন, শীতলকুচির ঘটনা নিয়ে সেই কারণেই চাপে পড়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই কৌশলতগত ভাবে তিনি পাল্টা আক্রমণাত্মক হয়েছে।

মমতার সাংবাদিক বৈঠকের জবাব দিয়েছে বিজেপিও। দলের মুখপাত্র জয়প্রকাশ মজুমদার বলেছেন, ‘আমার পঞ্চায়েত ভোট’ বলে মমতা যা বোঝাতে চাইছেন, সেই ভোট রাজ্য সরকারের মদতে হিংসা, বিরোধীদের উপর অত্যাচার মানুষের স্মৃতিতে রয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হতাশা বোধগম্য। কেন্দ্রীয় বাহিনীর কারণে ভোট লুঠ, ছাপ্পা বন্ধ হয়ে গেছে। তৃণমূলের খেলা বন্ধ হয়ে গেছে। সেটা আন্দাজ করেই বিভ্রান্ত হয়ে পড়েছেন উনি।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More