খদ্দেররা মাস্ক পরে দূরে দূরে আছে তো? দিল্লিতে মদের দোকানের বাইরে মার্শাল নিয়োগের নির্দেশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দিল্লি সরকার গত ১৯ এপ্রিল চালু করা লকডাউনের মেয়াদ সর্বশেষ ১৬ জুন পর্যন্ত বাড়িয়েছে। তবে করোনা সংক্রমণ, মৃত্যু কমতে থাকায় আনলক প্রক্রিয়াও পাশাপাশি চলছে। তাতে খোলা রয়েছে মদের দোকান। রাজ্য সরকার জোড়-বিজোড় নীতি অনুসারে সকাল ১০টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত মদের দোকান খোলা রাখার অনুমতি দিয়েছে। তবে মদের দোকান খোলা থাকা মানেই বাইরে দীর্ঘ লাইন খদ্দেরের। সেখানে কোভিড আচরণবিধি, দূরত্ববিধি লঙ্ঘনের আশঙ্কা থেকেই যায়। তাই দিল্লি সরকার সব মদের দোকানের মালিককে পর্যাপ্ত সংখ্যায় মার্শাল ও কর্মী নিয়োগ করতে বলল। ক্রেতারা সামাজিক দূরত্ববিধি মানছেন, মাস্ক পরে আছেন, সুনিশ্চিত করবেন তাঁরা।

ভেন্ডরদের পুলিশ, স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় গড়তে নির্দেশ দিয়েছে সরকার যাতে নিরাপত্তা ও শৃঙ্খলা বজায় থাকে। চারটি সরকারি কর্পোরেশন, বেসরকারি লাইসেন্স পাওয়া মদের দোকান মালিককে কর্মী নিয়োগ করতে হবে, যাঁরা দেখবেন, ক্রেতারা মাস্ক পরে আছেন, দূরে দূরে দাঁড়িয়ে আছেন, নিয়মিত স্যানিটাইজার ব্যবহার করছেন, মদ্যপান করছেন না, পান, গুটখা, তামাক সেবন করছেন না, অর্থাত্ কোভিড আচরণবিধি পালিত হচ্ছে। ৬ জুন জারি করা শুল্ক দপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে একথা বলা হয়েছে।
দিল্লিতে সরকারি এজেন্সি ও বেসরকারি মালিকানাধীন মিলিয়ে প্রায় সাড়ে ৮০০ মদের দোকান চলে। বর্তমানে সেগুলির প্রায় ৪০ শতাংশই বেসরকারি মালিকানায় চলে।
সরকার চালিত চারটি এজেন্সিও মদের দোকান চালায়। দিল্লি ট্যুরিজম অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন, দিল্লি স্টেট ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যান্ড ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন, দিল্লি কনজিউমার্স কোঅপারেটিভ হোলসেলকে মদের দোকান চালানোর ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে।

 

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More