মাথায় হেলমেট নেই, ৫০০ টাকা জরিমানার পরও সন্তানসম্ভবাকে তিন কিমি হাঁটালেন! সাসপেন্ড মহিলা পুলিশ অফিসার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পুলিশের উর্দি পরে এমন অমানবিকতা কী করে দেখালেন মহিলা অফিসার! ওড়িষার আদিবাসী অধ্যুষিত ময়ূরভঞ্জ জেলার সরথ থানার অফিসার ইন চার্জ (ওআইসি) হেলমেট চেকিং অভিযানের সময় এক ৮ মাসের সন্তানসম্ভবাকে তিন কিলোমিটার রাস্তা হাঁটিয়েছেন বলে অভিযোগ ওঠার পর তাঁকে সাসপেন্ড করলেন জেলা পুলিশ সুপার স্মিথ পারমার।

রীনা বক্সাল নামে ওআইসি-কে গত ২৮ মার্চ সাসপেন্ড করে বারিপদা সদরে পাঠানো হয়েছে, নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তিনি যেন থানার চার্জ অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইনস্পেক্টর বিডি দাশ মহাপাত্রকে বুঝিয়ে দিয়ে যান। কর্তব্য পালনে গাফিলতি, অসদাচরণে অভিযুক্ত হয়েছেন তিনি।

গুরুবারি নামে সন্তানসম্ভবা স্বামী বিক্রম বিরুলির বাইকে চেপে যাচ্ছিলেন উদালা সাব-ডিভিশনাল হাসপাতালে হেলথ চেক আপ করাতে। বিক্রমের মাথায় হেলমেট ছিল, কিন্তু গুরুবারি তা পরেননি। দম্পতিকে বাইক থামিয়ে রাস্তায়  দাঁড় করায় পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদে বিক্রম জানান, শরীর ভাল নেই বলে হেলমেট পরেননি স্ত্রী। কিন্তু তাতে কর্নপাত করেনি  পুলিশ। রীনা মোটর ভেহিকলস অ্যাক্ট ট্রাফিক বিধি ভাঙায় ৫০০ টাকা জরিমানা ধার্য করে বিক্রমকে কাছের থানায় গিয়ে টাকা জমা করতে বলেন। বিক্রম বলেন, অনলাইনে তিনি ফাইন দিয়ে দেবেন। কিন্তু তাত রাজি হননি রীনা। স্ত্রীকে সেখানেই  রেখে বিক্রম থানায় যান। গুরুবারি বাধ্য হয়ে চড়া রোদ  মাথায় নিয়ে তিন কিমি হেঁটে স্বাস্থ্যকেন্দ্রে যান। ফলে তাঁর শারীরিক সমস্যা হয়। ওই দম্পতি  এসআই রীনার বিরুদ্ধে অমানবিক আচরণের অভিযোগ দায়ের করলে তদন্ত হয়, তার রিপোর্টের  ভিত্তিতে তাঁকে সাসপেন্ড করেন ময়ূরভঞ্জের এসপি। রীনার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্তও হবে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More