‘আমার আশঙ্কা, এ তো সবে শুরু…’ কোভিড নিয়ে মোদীকে চিঠি রাহুলের, পরামর্শের সঙ্গে সমালোচনাও

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কোভিড নিয়ে পরামর্শ ও সমালোচনা– দুই মিশিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদাীকে চিঠি লিখলেন রাহুল গান্ধী। রাহুল লিখেছেন, এই বিপুল জনসংখ্যার এবং নাগরিক বৈচিত্রের দেশে যেভাবে মহামারী বাড়ছে, তাতে তাঁর আশঙ্কা, করোনাভাইরাসের এই ডবল ও ট্রিপল মিউট্যান্ট নতুন স্ট্রেনগুলির সংক্রমণ কেবলই শুরু। এর শেষ কোথায় কেউ জানে না।

এই চিঠিতে রাহুল প্রথমেই প্রধামমন্ত্রীকে মনে করিয়ে দিয়েছেন দেশের এই পরিস্থিতিতে তাঁর প্রাথমিক কর্তব্যের কথা। লিখেছেন, “কোভিড সুনামির লাগাতার দাপটে আমি আপনাকে চিঠি লিখতে বাধ্য হচ্ছি। এই চরম সংকটের সময়ে আপনার একমাত্র প্রাধান্য হওয়া উচিত সাধারণ মানুষের কল্যাণ। দেশের মানুষ যে প্রবল কষ্টের মধ্যে দিয়ে চলেছেন, তা থামাতে আপনার সব কিছু করা উচিত। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রেও ভারতের দায়িত্বের কথা মনে রাখা প্রয়োজন।”

চিঠির শুরুতে কোভিড প্রশাসনের তথা মোদীর কী করা উচিত, তা নিয়ে একাধিক পরামর্শ দিলেও চিঠির শেষে এসে কেন্দ্রকে দোষারোপ করেন রাহুল। তিনি স্পষ্ট লেখেন, “কোভিড পরিস্থিতি সামলাতে দেশকে ফের অবশ্যম্ভাবী লকডাউনের দিকে ঠেলে দিচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকারের ব্যর্থতা।”

রাহুলের কথায়, “বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে দেশে ভাইরাসের প্রজাতি পরিবর্তনের দিকে নজর রাখা উচিত। নতুন প্রজাতির উপর ভাইরাসের কর্মক্ষমতা কতটা, তা বিচার করা উচিত। পাশাপাশি দেশের মানুষের দ্রুত টিকাকরণ করা ও ভারতের আবিষ্কার সম্পর্কে সারা পৃথিবীর মানুষকে অবগত করাও সরকারের দায়িত্ব।”

রাহুল উল্লেখ করেছেন, বিশ্বের প্রতি ৬ জন মানুষের মধ্যে এক জন ভারতবাসী। দেশের এই বিপুল জনসংখ্যা, নাগরিক বৈচিত্র ভাইরাসের এতবার মিউটেশনের মূল কারণ। এই কারণেই ভাইরাস দিনে দিনে বিপজ্জনক রূপ ধারণ করছে। এটা যদি বাড়তে থাকে এভাবে তাহলে সেটা শুধু এ দেশের জন্য নয়, সারা বিশ্বের জন্যই ভয়ংকর বলে রাহুল উল্লেখ করেছেন।

পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ, “কোভিড ও টিকাকরণ স্ট্র্যাটেজি নিয়ে পরিচ্ছন্ন দৃষ্টিভঙ্গীর অভাব রয়েছে। মোদী সরকার করোনার বিরুদ্ধে আগেভাগে জয় ঘোষণা করে দিয়েছিল। সেই কারণেই আজ দেশের এই অবস্থা। যা পরিস্থিতি, তাতে দেশের স্বাস্থ্য পরিকাঠামো ভেঙে পড়ার মুখে।”

Leave a comment

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More