পরীক্ষা পে চর্চা, ২০২১: করোনা অতিমারী সামাজিক দূরত্ব তৈরি করেছে, আবার পরিবারে বন্ধনও সুদৃঢ় করেছে, বললেন মোদী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নরেন্দ্র মোদীর পরীক্ষা পে চর্চা, ২০২১। বুধবার করোনাভাইরাস অতিমারী আবহে প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়ালি এই কর্মসূচি পালন করলেন। কথা বললেন ছাত্র, শিক্ষক, অভিভাবকদের সঙ্গে। তাঁদের নানা প্রশ্নের সোজাসাপ্টা জবাব দিলেন। সেখানে প্রধানমন্ত্রী বললেন, করোনাভাইরাস একদিকে যেমন দেশবাসীকে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে বাধ্য করেছে, পাশাপাশি পরিবারের বন্ধনকেও কিন্তু মজবুত করেছে। তুলনামূলক কঠিন বিষয়ের ক্ষেত্রে বাচ্চাদের কীভাবে এগতে বলা উচিত, জনৈক শিক্ষকের প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য, সফল মানুষেরা প্রতিটি বিষয়ে দক্ষ হন না, কিন্তু একটি বিষয়ের ওপর তাঁদের দখল মারাত্মক হয়।
এ বছর পরীক্ষা পে চর্চা, ২০২১ কর্মসূচিতে সামিল হতে ১৩ লাখের বেশি রেজিস্ট্রেশন হয়েছিল। এবারই প্রথম এই কর্মসূচিতে গোটা বিশ্বের সব দেশ থেকে এন্ট্রি আমন্ত্রণ করা হয়েছিল। পড়ুয়া, শিক্ষক, অভিভাবকরা নিজেদের ভাবনা, উদ্বেগ, ধারণা, প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শেয়ার করেন।
গত বছর এই অনুষ্ঠান হয়েছিল নয়াদিল্লির তালকাটোরা স্টেডিয়ামে। সেখানে যোগ দিয়েছিলেন পড়ুয়া, অভিভাবক, শিক্ষকরা। শিক্ষামন্ত্রক পড়ুয়াদের মধ্যে থেকে ২.৬৩ লক্ষ আবেদন পেয়েছিল। সেখান থেকে মন্ত্রক বাছাই করে ডাকে ১০৫০ ছাত্রছাত্রীকে।
কী করে প্রজন্মের ব্যবধান ঘোচানো যায়, সে ব্যাপারে অভিভাবকদের প্রধানমন্ত্রীর পরামর্শ, আপনার সন্তানের প্রজন্মের আলোচনায় সমান আগ্রহ দেখান, আপনিও ওর আনন্দে সামিল হবেন, নিজেই বুঝবেন, প্রজন্মগত ফারাক কীভাবে মুছে যায়। প্রধানমন্ত্রী বাবা-মায়েদের সন্তানদের সঙ্গে দূরত্ব মুছে ফেলার পরামর্শ দেন। বলেন, আপনি যদি বুড়ো হতে চান, তবে সন্তানদের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলুন। কিন্তু নিজের যুবক সত্ত্বায় পরিণত হতে চাইলে সন্তানদের সঙ্গে দূরত্ব কমিয়ে ফেলুন।
প্রধানমন্ত্রীকে আমদাবাদের একটি ছাত্র প্রশ্ন করে, পড়ুয়ারা কীভাবে অতিমারী বছরটাকে মনে রাখবে। মোদী বলেন, পড়ুয়ারা নিজেদের শৈশবে বড় সমস্যার মুখোমুখি হয়েছে। স্কুল হল শিক্ষক, বন্ধুবান্ধবদের সঙ্গে মেলামেশা, স্মৃতি আকর তৈরির জায়গা। তোমরা নিশ্চয়ই করোনা কালের আগের জীবন মিস করছ। এই একটি বছর সম্পর্কে সবচেয়ে ভাল ব্যাপার হল, কারা তোমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ, সেটা বোঝা। কিছুই হালকা বলে ধরা উচিত নয়। আমরা পরিবারকে আরও ভাল করে বোঝার সময়ও পেয়েছি। করোনাকাল পরিবারকে একজোট করেছে।
প্রশ্নপত্র হাতে পেয়ে কেন আমরা উত্তর ভুলে যাই, এক ছাত্রের প্রশ্নের উত্তরে প্রধানমন্ত্রী চাপমুক্ত থাকার পরামর্শ দিয়ে বলেন, যাবতীয় টেনশনকে পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে রেখে এসো। টেনশন মোকাবিলার সমাধান এক্সাম ওয়ারিয়র বই ও নমো অ্যাপে পাবে।
অভিভাবকদের প্রধানমন্ত্রীর পরমর্শ, আপনাদের মূল্যবোধ বাচ্চাদের ওপর চাপিয়ে দেবেন না। বাচ্চারা অভিভাবকদের মূল্যবোধই মেনে চলতে বাধ্য, এমন কোনও কথা নেই। বরং তাঁরা ওদের বড় হয়ে উঠতে একেবারে মৌলিক মূল্যবোধগুলি ঢুকিয়ে দিন।

 

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More