‘দিদি ও দিদি’ থেকে ‘মমতা দিদি’, বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিধানসভা ভোটের প্রচারে এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিনি যে ভাবে ‘দিদি ও দিদি’ সম্মোধন করছিলেন তা আন্দোলিত করে তুলেছিল রাজ্য রাজনীতিকে। বিজেপি কর্মী সমর্থকরা তাতে খুশি ছিলেন। কিন্তু তৃণমূলের নেতা কর্মীদের তাতে যারপরনাই অসন্তোষ প্রকাশ করছিলেন। বলছিলেন, এ ভাবে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে টিপ্পনি করা দেশের প্রধানমন্ত্রীর শোভা পায় না।

সেই তিক্ততার পর্ব মিটে গিয়েছে। ভোটে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে তৃণমূল জিতেছে। বিজেপি পরাস্ত হয়েছে। এর পর রবিবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক প্রশ্নের জবাবে জানিয়েছিলেন যে তাঁকে বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও সর্বভারতীয় রাজনীতির নেতারা ফোন করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তবে প্রধানমন্ত্রী ফোন করেননি। মমতা বলেছিলেন, কে জানে খুব ব্যস্ত হয়তো!

এর পর প্রধানমন্ত্রী আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করেছিলেন কিনা স্পষ্ট নয়। তবে বুধবার মুখ্যমন্ত্রী পদে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শপথ গ্রহণের পর টুইট করে তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেই টুইট এক লাইনের। বিশেষ বিশেষণ নেই। তাতে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিনন্দন জানাচ্ছি।

মোদী-মমতা সম্পর্কের তিক্ততা যে কোনস্তরে পৌঁছেছে তা এই ভোটে দিব্য দেখা গিয়েছে। তবে এদিন মমতার শপথ বাক্য পাঠের পর রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় বলেন, ভোট মিটে গিয়েছে। পর পর তিন বার কোনও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পদে নির্বাচিত হওয়া কম কথা নয়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই কাজ করে দেখিয়েছেন। এর পর কেন্দ্র-রাজ্য সহযোগিতামূলক যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর শর্ত মেনে কাজ করবে বলেই তিনি আশাবাদী।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More