বুকে ব্যথা, হৃদরোগে আক্রান্ত? বাঁচতে ভরসা রাখুন পটাশিয়াম ডায়েটে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শরীর ও স্বাস্থ্যকে সুস্থ রাখতে প্রয়োজন ঠিক মতো খাওয়া দাওয়া করা। স্বাস্থ্যকর ডায়েট মেনে চললে এড়িয়ে যাওয়া যায় অনেক সমস্যায়। হার্টকে ভাল রাখতে, সমস্যা এড়াতে তাই ডায়েটে রাখুন পটাশিয়াম যুক্ত খাবার। পটাশিয়াম পূর্ণ খাবার না খান, তাহলে আপনার কার্ডিওভ্যাসকুলার বা হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সম্প্রতি, একটি তথ্যে প্রকাশ পেয়েছে যে, প্রত্যেকদিন একটি করে কলা খেলে হৃদরোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

শরীরে পটাশিয়ামের পরিমান কম হলে ধমনী শক্ত হয়ে যায় এবং ধমনীর চলাচলও অনিয়মিত হয়ে যায়। ফলে হৃদরোগের সম্ভাবনাও বেড়ে যায়। তাহলে হৃদরোগ প্রতিরোধ করতে নিয়মিত একটি করে কলা খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

তরমুজ

শহরে গরম পড়েই গেছে বলা যায়। তরমুজ একটি গরমকালের ফল যা জলে পরিপূর্ণ। গরমে তরমুজ খাওয়ার উপকারিতার শেষ নেই। এই ফলটি হৃদপিণ্ডের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে দারুণ কার্যকর। এতে রয়েছে প্রচুর পটাশিয়াম ফলে তরমুজ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।

ডালিম

পটাশিয়াম রয়েছে এমন আরেকটি ফল হল ডালিম। ডালিমে রয়েছে ফাইবার, প্রোটিন, ভিটামিন- সি, ভিটামিন-কে এবং ফোলাট (ফলিক অ্যাসিড ও ভিটামিন বি ৯ এর একটি সংমিশ্রণ)। এছাড়া ডালিম প্রদাহজনিত সমস্যার বিরুদ্ধে লড়তে শরীরকে সাহায্য করে।

কমলালেবুর রস

অনেকেই ব্রেকফাস্টে কমলালেবুর রস খেয়ে থাকেন। এটি শরীরে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি ও পটাশিয়াম সরবরাহ করে।

পালং শাক

পালং শাক সবচেয়ে পুষ্টিগুনসম্পন্ন সবুজ শাকের মধ্যে একটি। পালং শাকে রয়েছে বিপুল পরিমাণে পটাশিয়াম। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ জল ও ফাইবার। এছাড়া পালং শাক আপনাকে সরবরাহ করবে অতি প্রয়োজনীয় ভিটামিন-এ, সি ও কে। এছাড়া পালং শাকে রয়েছে উচ্চ মাত্রার ফলিক এসিড, আয়রন ও ক্যালসিয়াম। ডায়েট তালিকায় দৈনিক এক কাপ পালং শাক আপনার ওজন কমাতে সাহায্য করবে।

ডাবের জল

গরমে ডাবের জল আপনাকে রাখবে সতেজ। এই প্রাকৃতিক সুস্বাদু পানীয় নানা পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ। ডাবের জল শরীরে পর্যাপ্ত পটাশিয়াম সরবরাহ করে। এছাড়া দেহকে বিষাক্ত পদার্থমুক্ত রাখতে সহায়তা করে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More