৪ হাজার কোচে ৬৪ হাজার বেডের ব্যবস্থা রেলের, চিকিৎসাধীন ১৬৯ করোনা-আক্রান্ত

দ্য ওয়াল ব্যুরো: করোনার সেকেন্ড ওয়েভ সামলাতে নাজেহাল গোটা দেশ। হাসপাতালগুলিতে বেডের হাহাকার। সংকট বাড়াচ্ছে অক্সিজেনের ঘাটতি। এই পরিস্থিতিতে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় ভারতীয় রেল। করোনা চিকিৎসার জন্য প্রায় ৪ হাজার কোচকে প্রস্তুত করা হয়। সাজানো হয় মোট ৬৪ হাজার বেড।

এর আগেই দ্রুততার সঙ্গে ১৬৯টি কোচ বিভিন্ন রাজ্যের জন্য বরাদ্দ করেছিল রেল। এবার রোগীদের চিকিৎসার ক্ষেত্রেও তৎপরতা শুরু করল তারা। সূত্রের খবর, রেলওয়ের আইসোলেশন কোচগুলিতে আপাতত ১৪৬ জন করোনা আক্রান্ত ভর্তি রয়েছেন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৬৬ জন। মঙ্গলবার রেলমন্ত্রকের তরফে এমন তথ্য সামনে এসেছে।

কোভিড-বিধ্বস্ত মহারাষ্ট্র, মধ্যপ্রদেশ, দিল্লি ও উত্তরপ্রদেশে জরুরি ভিত্তিতে এই বিশেষ পরিষেবা আগেই চালু হয়েছিল। এবার পশ্চিমে গুজরাত ও উত্তর-পূর্বের পাহাড়ি রাজ্য নাগাল্যান্ডেও কোভিড কোচ মোতায়েন করল রেল। মন্ত্রক সূত্রে বলা হয়েছে, ‘বিভিন্ন স্টেশনে শুধু করোনা রোগীদের চিকিৎসাই নয়, যাত্রীস্বাচ্ছন্দ্য বজায় রাখতে বিশেষ র‍্যাম্প বসানো হয়েছে। চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা যাতে নির্বিঘ্নে কাজ করতে পারেন এবং অসুস্থ রোগীদের নিয়ে যাওয়া-আসার ক্ষেত্রেও যাতে অসুবিধা না হয়, তার জন্য স্টেশনগুলি যতটা সম্ভব ফাঁকা রাখার চেষ্টা চলছে।’

করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হানার সঙ্গে সঙ্গে দানা বেঁধেছে অক্সিজেন সংকট। এই সমস্যা মেটাতেও তৎপর রেল। শুরু হয়েছে অক্সিজেন এক্সপ্রেস পরিষেবা। কয়েকদিন আগে রেলমন্ত্রী পীযুষ গোয়েল জানান, দেশের একাধিক প্ল্যান্টে তৈরি অক্সিজেন ট্যাঙ্কার বিশেষ মালগাড়ি করে সংশ্লিষ্ট হাসপাতালগুলিতে পৌঁছে দেওয়া হবে। বানানো হবে গ্রিন করিডর। যার ফলে ট্রেনগুলি নির্ঝঞ্ঝাটে এক জায়গা থেকে অন্যত্র যাতায়াত করতে পারবে। ইতিমধ্যে দুর্গাপুর স্টিল প্ল্যান্ট থেকে প্রায় ৬০টি ফাঁকা ট্যাঙ্ক দিল্লি পৌঁছেছে।

এর পাশাপাশি আইসোলেশন বেড সাজানোর দিকেও জোর দেওয়া হয়েছে। রেকমন্ত্রীর দাবি অনুযায়ী, রাজ্যগুলির চাহিদার উপর ভিত্তি করে ট্রেনে মোট ৩ লক্ষ আইসোলেশন বেডের ব্যবস্থা করা সম্ভব। এরপর নরেন্দ্র মোদি দিল্লির শকুর বস্তি স্টেশনে ৫০টি আইসোলেশন কামরায় মোট ৮০০টি বেডের ব্যবস্থার ঘোষণা করেন। এর পাশাপাশি দিল্লির আনন্দবিহার স্টেশনেও এমন ২৫টি কোচের ব্যবস্থা করা হয়।

একইভাবে ইন্দোরের তেহরি স্টেশনেও ২০টি কোভিড কেয়ার কোচ রাখা হয়েছে। রবিবার মোট ৩৮১৬টি ট্রেনের কোচ করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ঢেলে সাজানো হয়েছে। যেখানে মোট ৩২০টি শয্যা, অক্সিজেন সিলিন্ডার-সহ অন্যান্য সমস্ত সুবিধা রয়েছে। উল্লেখ্য, নাগপুরের অজনি কনটেইনার ডিপোতে মোট ‘কোভিড কেয়ার কোচ’ মোতায়েন করা হবে বলে খবর। যেখানে সর্বমোট মোট ১৭০ জন রোগীকে জায়গা দেওয়া সম্ভব।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More