কোভিড সংকটের মধ্যে সুদের হার অপরিবর্তিত রাখল রিজার্ভ ব্যাঙ্ক

দ্য ওয়াল ব্যুরো : দেশে দৈনিক কোভিড সংক্রমণ ছাড়িয়েছে এক লক্ষের বেশি। অতিমহামারী রুখতে নতুন করে জারি হচ্ছে বিধিনিষেধ। এই পরিস্থিতিতে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর শক্তিকান্ত দাস ঘোষণা করলেন, রেপো রেট ও রিভার্স রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখা হচ্ছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক যে সুদে বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলিকে ঋণ দেয়, তাকে বলে রেপো রেট। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক নিজে যে সুদে বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নেয়, তাকে বলে রিভার্স রেপো রেট। বর্তমানে রেপো রেট চার শতাংশ। রিভার্স রেপো রেট সাড়ে তিন শতাংশ।

শক্তিকান্ত দাস জানিয়েছেন, অর্থনীতিতে কোভিড মহামারীর যে প্রভাব পড়েছে, তা সামলে ওঠার জন্য নির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিচ্ছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। সম্প্রতি রিজার্ভ ব্যাঙ্কের মনিটারি পলিসি কমিটির বৈঠক হয়েছিল। কমিটির সদস্যরা সর্বসম্মতভাবে রেট অপরিবর্তিত রাখার পক্ষে রায় দিয়েছেন। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর বলেছেন, সম্প্রতি কোভিড সংক্রমণ যেভাবে বাড়ছে, তার ওপরে আমরা নজর রাখছি।

২০২০ সালের ২২ মে কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক প্রথমবার পলিসি রেট কমায়। তখন দেশে করোনার প্রথম ওয়েভ চলছিল। ২০২০-র মার্চ থেকে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক রেপো রেট কমিয়েছে ১১৫ বেসিস পয়েন্ট।

গত ফেব্রুয়ারিতে খুচরো পণ্যের বার্ষিক গড় মুদ্রাস্ফীতির হার হয়েছে ৫.০৩ শতাংশ। তার আগের তিন মাসের তুলনায় মুদ্রাস্ফীতির এই হার সর্বাধিক। জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির জন্য খুচরো পণ্যের মুদ্রাস্ফীতি বেড়েছে। পর্যবেক্ষকদের মতে, আগামী দিনে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য আরও বাড়তে পারে।

করোনার সেকেন্ড ওয়েভ আগামী দিনে অর্থনীতিতে প্রভাব ফেলবে বলে পর্যবেক্ষকরা আশঙ্কা করছেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ছ’টায় সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে নিয়ে ভার্চুয়াল বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কেন্দ্রের তরফে বলা হয়েছে, যে যে রাজ্যে ভোট রয়েছে সেই রাজ্যের মুখ্যসচিব ওই বৈঠকে প্রতিনিধিত্ব করবেন। সূত্রের খবর, ওই বৈঠক থেকে রাজ্যগুলির উদ্দেশে বেশ কিছু বিধিনিষেধ আরোপ করার নির্দেশ দিতে পারে কেন্দ্রীয় সরকার।

গত রবিবার জরুরি ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের সঙ্গে বৈঠকে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ওই বৈঠকের পরেই বৃহস্পতিবারের বৈঠকের সিদ্ধান্ত নেয় দিল্লি। প্রসঙ্গত, চার রাজ্যের ভোট প্রক্রিয়া মঙ্গলবার শেষ হয়ে গেছে। বাকি শুধু পশ্চিমবঙ্গের পাঁচ দফা ভোট। বাংলার তরফে মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানা গিয়েছে নবান্ন সূত্রে।

ইতিমধ্যেই নবান্নের তরফে জানা গিয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকের পরের দিন অর্থাৎ ৯ এপ্রিল যে পাঁচ জেলায় ভোট হয়ে গিয়েছে সেই জেলাগুলির জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারদের বৈঠকে ডেকেছেন মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। দুই মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া ও ঝাড়গ্রামের এসপি ও ডিএমকে ডাকা হয়েছে বৈঠকে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More