আসানসোলের মানুষের ‘অভূতপূর্ব’ সাড়ায় ‘অভিভূত’ সায়নী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজনীতির ময়দানে পাশা কী ভাবে বদলে যায় সেটা কেউই বলতে পারে না! কে শত্রু আর কে মিত্র, সেই সমীকরণের উত্তর মেলা ভার। একটা বিতর্ক সভার প্রশ্নোত্তর পর্ব থেকে রাজনীতির ময়দানে একেবারে প্রার্থী-সায়নী ঘোষ। নেটিজেনদের মধ্যে তিনি চর্চিত অন্যতম নাম। রাজনীতিতে অভিষেক বেশি দিন না হলেও, তিনি বরাবরই ভোকাল। সমকালীন যে কোনও পরিস্থিতি নিয়েই দেখা গেছে তাঁকে মতামত রাখতে। এমন কী তিনি যে দলের হয়ে প্রার্থী হয়েছেন, অতীতে সেই দলের বিরুদ্ধেও কথা বলার নজির গড়েছেন সায়নী নিজেই। নেটিজেনদের একাংশের মনে হয়েছে সায়নী সিস্টেমের মধ্যে থেকেই সিস্টেমকে বদলাতে বিশ্বাসী!

এবার বিধানসভা নির্বাচনে দক্ষিণ আসানসোলের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী সায়নী। নামের আগে তারকা তমকাকে সরিয়ে আসানসোলের ঘরের মেয়ে হয়ে উঠতে মরিয়া এখন তিনি। সকাল থেকে সন্ধ্যা চলছে টানা প্রচার, দলীয় কর্মসূচী। রাজনীতির ময়দানে ‘খেলা হবে’র খেলা শুরু হয়ে গেছে অনেক দিন, কিন্তু খেলতে নেমে যে কোনও খেলোয়াড়ই এক চুলও জমি ছাড়বেন না তা স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে সাধারণ মানুষের কাছে।

সায়নী প্রচার চালাচ্ছেন, আবার সেই ফাঁক দিদার স্পেশ্যাল পুদিনার চাটনি বানানোও শিখে নিচ্ছেন। আসানসোলের মানুষের কাছ থেকে ছাড়া পেয়ে অভিভূত সায়নী। নিজেই সেই কথা টুইট করলেন, “সকাল থেকে সন্ধে অব্দি আমার সকল সহকর্মীর উৎসাহ এবং আসানসোলের মানুষের অভূতপূর্ব সাড়ায় আমি সত্যিই অভিভূত।”

শুধু এইটুকুই নয়, এর পাশাপাশি তিনি আরও লেখেন, “আসানসোল দক্ষিণের ওয়ার্ড নম্বর ৮৬-তে মহসিলা কলোনী এবং বটতলা বাজার এলাকা পরিদর্শন এবং সেখানকার সকল মানুষের সাথে তাদের সুবিধে-অসুবিধে সবকিছু নিয়ে কথোপকথনের কিছু বিশেষ মুহূর্ত।” পরিদর্শন যেমন করছেন, শুনছেন মানুষের দাবি, সুবিধা-অসুবিধার কথা। আর এই সকল মুহূর্তের ছবি তিনি পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

১৪ মার্চ নন্দিগ্রাম দিবসের দিন হুইল চেয়ারে করে পথে নামেন মমতা ব্যানার্জী। দলনেত্রীর এমন মনের জোর দেখে সায়নী ঘোষও উদ্বুদ্ধ। বলছেন, “বাঘিনী সেই, যাকে শত আঘাত করলেও দমে থাকেন না। অন্যায়ের প্রতিবাদে গর্জে ওঠেন,পথে নামেন। যতই আঘাত করো আমাদের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিদি তোমাদের জমানত জপ্ত করেই ছাড়বে।”

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More