তৃণমূলে নাম লিখিয়েই ‘দিদি’র হয়ে প্রচার শুরু সায়নীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজনীতির ময়দানে খেলার দান কীভাবে বদলে যায় তা কেউই বলতে পারেন না! ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে রাস্তায় নেমে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আওয়াজ তুলেছিলেন অভিনেত্রী সায়নী ঘোষ।

বামমনস্ক বলেই পরিচিত সায়নী এখন তৃণমূলের মঞ্চে। কিন্তু এর আগেও তাঁকে মমতা ব্যানার্জীর সরকারের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমে সরব হতে দেখা গেছে। অনীক দত্তের পরিচালিত ‘ভবিষ্যতের ভূত’-এর রিজিলের সময়েও তিনি সরকারের বিরুদ্ধে আওয়াজ তোলেন। দুই বছর পরে সেই সায়নী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে যোগদান করলেন তৃণমূলে।

দলে নাম লিখিয়েই তিনি শুরু করে দিয়েছেন ‘দিদি’র হয়ে প্রচার। চারিদিকে যে ‘খেলা হবে’, ‘খেলা হবে’ রব উঠেছে, সেই সুরেই সুর মিলিয়ে ‘মনডে মর্নিং মোটিভেশন’ বলে ছবি পোস্ট করেছেন। আর সেই সঙ্গে তিনি আরও লেখেন, ”বাংলা আমার বাংলা রবে। বন্ধু এবার…” এই ডটের মানে যে ‘খেলা হবে’ সেটা নেটিজেনরা ভালই বুঝেছেন।

তবে সায়নীর শেয়ার করা এই ছবি দুটোর নিচে এসেছে বহু কমেন্ট। অনেকেই লিখেছেন, ”খেলা হবে না, কাল বাম দের ডাকা ব্রিগেদের পর খেলা শুরু হয়ে গেছে, এইবার খেলা শেষ হবে।” কেউ কেউ শিক্ষিত যুবকদের কথা তুলে লেখেন,”শিক্ষিত যুব সমাজের জীবন নিয়ে তো ১০ বছর খেলাই করে গেল, আর নতুন করে কত খেলবে?” আবার অনেকেই ‘দিদি’র প্রশংসা করে লেখেন, ”ভাল দামী জুতো ও পোশাকের থেকে সাধারণ, মানুষের হাওয়াই চটি যে এত শক্ত, টেকসই ও মজবুত মানসিকতার আওয়াজ তুলতে পারে সেটা এবার হারে হারে টের পাচ্ছেন ধনী পার্টির নেতারা।”

হুগলির তৃণমূলের মঞ্চে দাঁড়িয়ে সায়নীকে ধন্যবাদ জানাতে দেখা গেল ‘দিদি’কে। এত কম বয়সে, এত বড় সুযোগ পাওয়ার জন্য তিনি ধন্যবাদ দেন মুখ্যমন্ত্রীকে। সেই সঙ্গে এও বলেন যে বাংলা পাখির চোখ হতে দেবেন না।

সায়নী ঘোষের তৃণমূলে যোগ দেওয়া নিয়ে বেশ হতাশ হয়েছেন অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। ফেসবুকে সায়নীর তৃণমূলে যোগ দেওয়ার খবরের লিঙ্ক শেয়ার করে শ্রীলেখা লিখেছেন, “এটা আশা করিনি সায়নী, তুইও বিক্রি হয়ে গেলি, খেলতে নেমে গেলি? খুবই দুঃখজনক।”

সায়নী-তথাগতের টুইট যুদ্ধের সময়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর পাশে দাঁড়িয়ে বলেন, “সায়নী বলে একটা মেয়ে, তাকে বিজেপি ধমকাচ্ছে। কেন? এত বড় ক্ষমতা!” আর মুখ্যমন্ত্রীর অভয়বাণীতেই মজেছেন সায়নী। এর আগেও তিনি সংবাদ মাধ্যমকে জানান যে তিনি ইচ্ছে করলে যে কোনদিনই যোগ দিতে পারেন রাজনীতিতে।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More