ভাষা আন্দোলনের শহিদদের পাশে এবার জুড়ে গেল মইদুলেরও নাম

দ্য ওয়াল ব্যুরো: গানে গানে হোক প্রতিবাদ, গানকেই অস্ত্র করে নিয়ে বারবার পথে নেমেছেন অনেকে। নিজের হকের দাবি বুঝে নিতে অধিকাংশ মানুষই ভরসা রেখেছেন রাজপথে, লড়াই, বিপ্লবে।

মইদুল মিদ্যা, নামটা আজকের দিনে দাঁড়িয়ে পশ্চিমবঙ্গের কে না জানেন! সুদীপ্ত গুপ্তদের তালিকাতে জুড়ে গেছে তাঁর নাম। মইদুলের মৃত্যুতে রাজপথ থেকে সোশ্যাল মিডিয়ার ভার্চুয়াল পথ, সবেতেই আছড়ে পড়েছে প্রতিবাদ। শিল্পী, জ্ঞানীগুণী মানুষ থেকে সাধারণ মানুষ সকলেই পুলিশের হাতে তাঁর মৃত্যুর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। এবার সেই তালিকাতে উঠে এলো গায়ক অর্ক মুখার্জীর নাম।

২১ তারিখ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের দিন তিনি বেলুড়ে একটি অনুষ্ঠান করতে যান। সেখানেই মঞ্চে ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো ২১ ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’ গাইতে গাইতে তিনি গেয়ে ওঠেন মইদুলের কথা। ২১এ ফেব্রুয়ারি গানের সুরেই মইদুলের কথা স্মরণ করে তিনি গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো ১১ ই ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি’! এখানেই তিনি থামেননি, তারপর গেয়ে ওঠেন, ‘মইদুল মিদ্যার রক্তে রাঙানো ১১ই ফেব্রুয়ারি, আমি কি ভুলিতে পারি!’ তাঁর গানের সঙ্গে গলা মেলান হলে থাকা বাকিরাও।

গত ১১ ফেব্রুয়ারি নবান্ন অভিযানে গিয়ে পুলিশের হাতে বেধড়ক মার খেয়েছিলেন বাঁকুড়ার কোতলপুরের ডিওয়াইএফআই নেতা মইদুল মিদ্দ্যা। মাথা, কোমর, বুক ও কিডনিতে চোট পান ৩২ বছরের মইদুল। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাঁকে কলকাতায় ময়দানের কাছে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই সোমবার সকাল ৭টা নাগাদ মৃত্যু হয়েছে মইদুলের।

পেশায় অটোচালক মইদুল ডিওয়াইএফআইয়ের বাঁকুড়ার গোপীনাথপুর ইউনিটের সেক্রেটারি ছিলেন। দক্ষ সংগঠক হিসেবেই তাঁর পরিচিতি ছিল। গত ১১ ফেব্রুয়ারি বাকি কমরেডদের সঙ্গে তিনিও আসেন নবান্ন অভিযানে। একদম সামনের সারিতে নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন। ব্যারিকেড ভাঙার পরেই পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয় বাম ছাত্র ও যুব নেতাদের। লাঠির আঘাতে রাস্তাতেই লুটিয়ে পড়েন মইদুল। তাঁকে উদ্ধার করে ময়দানের কাছে বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই কয়েক দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছিলেন তিনি। কিন্তু সোমবার সকালে শেষ হয়ে গেল তাঁর লড়াই।

You might also like
Comments
Loading...

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More